অনলাইন ডেস্কঃ আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সৈন্য চলে যাওয়ার পর দেশটিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। সরকারি বাহিনী ও তালেবানের মধ্যে চলছে তুমুল লড়াই। এতে দেশটির বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে বাসিন্দারা। এমতাবস্থায় দেশটিতে সর্বাত্মক যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছে প্রতিবেশী চীন ও পাকিস্তান। বৃহত্তর, অংশগ্রহণমূলক এবং সংলাপভিত্তিক রাজনৈতিক সমাধান অর্জনে বিবদমান পক্ষগুলোকে একসঙ্গে কাজ করারও আহ্বান জানিয়েছে দেশ দুটি।

চীনের সিচুয়ান প্রদেশের রাজধানী চেংদুতে দু’দেশের ‘কৌশলগত সংলাপ’-এর তৃতীয় সেশনে অংশ নিয়ে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং পাকিস্তান পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি এ আহ্বান জানান। খবর ডন’র।

এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, দ্রুত শান্তিপূর্ণ, স্থিতিশীল, ঐক্যবদ্ধ এবং সমৃদ্ধ আফগানিস্তান অর্জনে ‘আফগান নেতৃত্বাধীন এবং আফগান নিয়ন্ত্রিত’ শান্তি ও ঐক্য প্রক্রিয়া আয়োজন ও সমর্থনে দু’পক্ষ তাদের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করছে যাতে দেশটি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে দৃঢ়ভাবে লড়তে পারে এবং প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান করতে পারে।

এদিকে আফগানিস্তানে তালেবানের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে। আরও একটি জেলা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে তালেবান যোদ্ধারা। লড়াই চলছে একাধিক ফ্রন্টে।

তোলো নিউজ জানিয়েছে, পূর্বাঞ্চলীয় কুনার প্রদেশের নারাই জেলা তালেবানের নিয়ন্ত্রণে চলে গেছে। সামরিক সহায়তার অভাবে সরকারি বাহিনী ওই জেলা ত্যাগ করলে কোনও ধরনের লড়াই ছাড়াই তালেবান জেলাটির নিয়ন্ত্রণ নেয়।

এছাড়া আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে আগস্টের শুরুতে পরবর্তী শান্তি আলোচনা শুরু হতে পারে বলে দোহা সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে তোলা নিউজ।

এর আগে গত ১৬ জুলাই দোহায় প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দু’দিন ওই বৈঠক চলে। বৈঠকে কোনও সিদ্ধান্ত আসেনি। তবে পুরনায় বৈঠকে মিলিত হওয়ার বিষয়ে দু’পক্ষ সম্মত হয়। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here