অনলাইন ডেস্কঃ ভারতে টানা কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে জায়গায় জায়গায় ধস নেমেছে। এতে একসঙ্গে ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে মুম্বাই থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত রায়গড় জেলার কোঙ্কণে। বৃহস্পতিবার সেখানকার বেশ কিছু জায়গায় ধস নামে। তাতে এক জায়গা থেকে ৩২ জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে।

অন্য আরেকটি জায়গা থেকে আরও চারটি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। কমপক্ষে আরও ৩০ জন আটকে রয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাদের উদ্ধার করতে হেলিকপ্টার নামিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মোট ১২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজ্যের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক সিনিয়র কর্মকর্তা জানান, মহারাষ্ট্রে গত ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ভূমিধসসহ বৃষ্টিজনিত ঘটনায় ১২৯ জন মারা গেছেন।

গত কয়েক দিন ধরেই ভারী বৃষ্টি হচ্ছে মহারাষ্ট্রে। তাতে মুম্বাইসহ একাধিক এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে রায়গড়, রত্নগিরি, কোলাপুরসহ একাধিক জেলায়। গত ৪০ বছরে জুলাই মাসে এই পরিমাণ বৃষ্টি মহারাষ্ট্রে হয়নি বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

উদ্ধার কাজ চালাতে নৌবাহিনী এবং উপকূল বাহিনীর সাহায্যও নিচ্ছে রাজ্য সরকার। এছাড়াও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী নামানো হয়েছে। একটানা বৃষ্টিতে মাটি আলগা হয়ে একাধিক জায়গায় বাড়িও ভেঙে পড়েছে।

মহারাষ্ট্রের উপকূলবর্তী এলাকাগুলোর ৫০ শতাংশ ডুবে গেছে। অনেক জায়গায় আটকে রয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের পানি ভেঙে বের হওয়ার ঝুঁকি নিতে নিষেধ করা হয়েছে। বাড়ির ছাদে অথবা উঁচু জায়গায় থাকতে বলা হয়েছে, যেখান থেকে হেলিকপ্টার তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যাবে। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here