অনলাইন ডেস্কঃ ইকুয়েডরের দক্ষিণাঞ্চলীয় কোতোপাক্সি প্রদেশের একটি কারাগারে বন্দিদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ২২ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়াও আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য।

বুধবার (২১ জুলাই) দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ গুয়াস ও মধ্যাঞ্চলীয় কোটোপ্যাক্সিতে কারাগারে দুই বিরোধী গ্রুপের মধ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।

কারা কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়, কারাগারে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। এ সময় অর্ধশতাধিক বন্দি কারাগার থেকে পালালেও পরে অন্তত ৬৭ জনকে পুনরায় গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
আন্দিয়ান কাউন্টির এসএনএআই কারা কর্তৃপক্ষ বলেছে, চলতি বছরে দ্বিতীয় বারের মতো এমন বড় ধরনের কারা সহিংসতা ঘটেছে।
এ ঘটনায় দেশটির গুয়াইয়াস এবং কোতোপাক্সি প্রদেশের কারাগারগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশের বিশেষ ইউনিটের সদস্যদেরকে।
এর আগে গত ফেব্রুয়ারিতে তিনটি কারাগারে সহিংসতায় ৭৯ বন্দি নিহত হয়েছিলেন। দুই বিরোধী গ্রুপের মধ্যেই এই দাঙ্গা হয়েছিল। এ সময় বন্দিদের শিরশ্ছেদ ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া জুনেও আরেক দাঙ্গায় দুজন নিহত হন।
বন্দিতে ঠাসা কারাগারগুলোতে সহিংসতা বন্ধে বহু বছর ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির কর্মকর্তারা। ২০২০ সালে ইকুয়েডরের কারাগারে ১০৩ বন্দি নিহত হয়েছিলেন। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here