অনলাইন ডেস্কঃ আনুষ্ঠানিকভাবে পর্দা উঠছে টোকিও অলিম্পিকের। শুক্রবার (২৩ জুলাই) শুরু হবে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ-টোকিও অলিম্পিক। ৫০টি ডিসিপ্লিনে অংশ নেবেন ২০৬টি দেশের প্রায় সাড়ে ১১ হাজার ক্রীড়াবিদ। লড়বেন ৩৩৯টি স্বর্ণপদকের জন্য। জাপানের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে আসরের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন সম্রাট নারুহিতো। আসরের পর্দা নামবে ৮ আগস্ট।

অবশেষে এসেই গেল বিশ্ব ক্রীড়ার সবচেয়ে বড় উৎসব অলিম্পিক গেমস। কথা ছিল ২০২০ সালের ২৪ আগস্ট মাঠে গড়ানোর। কিন্তু উহান থেকে আসা করোনা ঝড় লণ্ডভণ্ড করে দেয় জাপানবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্নের। পিছিয়ে যায় এক বছর। অনেক আকাঙ্ক্ষার অলিম্পিক এক সময় রূপ নেয় গলার কাটায়। করোনার মারাত্মক আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার সংগ্রামে অলিম্পিক বাতিলের দাবিতে মাঠে নামেন জাপানিরা। ২০১৩ সালে বুয়েন্স আয়ার্সে আয়োজক হওয়ার সে ক্ষণের কথা ভুলে যান সবাই। ৮০ শতাংশের বেশি মানুষই চাননি অলিম্পিকের বাস্তবায়ন।

মাঝে আয়োজকদের মাঝেও দেখা দিয়েছে জটিলতা। বিতর্কিত আচরণের খেসারত দিয়ে বিদায় নেন মোরি। কাণ্ডারি হয়ে আয়োজক কমিটির হাল ধরেন সেইকো হাসিমোতো। শত বাধায় হাল ছাড়েননি আইওসি প্রধান থমাস বাখ। অপেক্ষা রূপ নিয়েছিল কাতর প্রতীক্ষায়। অবশেষে একঝাঁক মানুষের নিরলস শ্রমে আলোর মুখ দেখেছে টোকিও অলিম্পিক। বাকি শুধুই আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের।

১৯৬৪ সালের পর জাপানে দ্বিতীয়বারের মতো গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক। ১৯৭২ ও ১৯৯৮ সালে দুবার জাপানে হয়েছিল শীতকালীন অলিম্পিক। সব মিলিয়ে চারবার অলিম্পিকের স্বাদ পেলো সূর্যোদয়ের দেশটি। এবারের অলিম্পিকে ২০৬ টি দেশের প্রায় সাড়ে ১১ হাজার ক্রীড়াবিদ অংশ নেবেন। করোনার চ্যালেঞ্জের মাঝে শুরু হওয়া এবারের আসরে থাকবে কঠোর বিধিনিষেধ। মাঠে যাওয়ার সৌভাগ্য হবে না কোন দর্শকের।

৩৩টি ক্রীড়ার ৫০টি ডিসিপ্লিনে ৩৩৯টি স্বর্ণ পদকের জন্য লড়বেন অ্যাথলিটরা। প্যারা-অলিম্পিকে স্বর্ণপদকের সংখ্যা ৫৪০টি। দেখা যাবে না চিরাচরিত সেই পদক গ্রহণের দৃশ্য। ইভেন্ট শেষে পদক রেখে দেওয়া হবে একটি নির্দিষ্ট স্থানে। বিজয়ীরা নিজেই গ্রহণ করবেন নিজের পদক। অলিম্পিক স্টেডিয়ামে থাকবে না বর্ণিল আয়োজন। উদ্বোধন করবেন সম্রাট নারুহিতো। রিও অলিম্পিকের চেয়ে এবারের আসরে যোগ হচ্ছে নতুন কয়েকটি খেলা। অভিষেক হচ্ছে তিন গুণিতক তিন বাস্কেটবল, ফ্রি-স্টাইল বিএমএক্স,কারাতে, স্পোর্ট ক্লাইম্বিং, সার্ফিং ও স্কেট বোর্ডিংয়ের।

এবার গেমসে কঠোর বিধিনিষেধের কারণে গেমস ভিলেজের বাইরে যেতে পারবেন না খেলোয়াড়রা। একদিন পরপর হবে করোনা পরীক্ষা। থাকবে না কোনো দর্শনীয় স্থানে ভ্রমণের সুযোগ। ৮ আগস্ট পর্দা নামবে টোকিও অলিম্পিকের। আসর শেষের ১৬ দিন পর টোকিওতে শুরু হবে প্যারা-অলিম্পিক। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here