অনলাইন ডেস্কঃ চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হেনান প্রদেশে ভারি বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যায় কমপক্ষে ২৫ জন মারা গেছেন বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

তারা জানায়, হেনান প্রদেশের একটি সাবওয়ে রেলের মধ্যে আটকাপড়ে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ৫ জনকে মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

এছাড়া প্রায় ৫০০ জনকে ওই সাবওয়ে রেল থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ওই সাবওয়ে থেকে উদ্ধার পাওয়া একজন নাগরিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন, পানি প্রায় আমার গলা পর্যন্ত উঠে গিয়েছিল। পানিতে ডুবে মৃত্যুর থেকেও ভয়াবহ ঘটনা হচ্ছে। ওই সাবওয়ে অক্সিজেনের পরিমাণ একেবারে সর্বনিম্ন পর্যায়ে চলে গিয়েছিল। এদিকে রয়টার্স জানায়, ওই অঞ্চলে ভূমিধসে এবং দেওয়াল ধসে আরো ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।
চীনের স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষ জানায়, বুধবার (২১ জুলাই) বন্যার কবল থেকে জীবনরক্ষায় হেনানের রাজধানী ঝেংঝু থেকে প্রায় দুই লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এখনও ১০ লাখ মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় ওই শহরে অবস্থান করছে।  
বুধবার (২১ জুলাই) চীনের আবহাওয়াবিদরা বলছেন, হেনানে গত এক হাজার বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভারি বৃষ্টি হয়েছে। এক কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার ঝেংঝাও পীত নদীর তীরে অবস্থিত।
বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গত শনিবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত ঝেংঝুতে ৬১৭ দশমিক ১ মিলিমিটার (২৪ দশমিক ৩ ইঞ্চি) বৃষ্টিপাত হয়েছে, যা সেখানকার বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতের প্রায় সমান (৬৪০ দশমিক ৮ মিলিমিটার বা ২৫ দশমিক ২ ইঞ্চি)।
মুষলধারে বৃষ্টির প্রভাবে সৃষ্ট বন্যার কারণে ঝেংঝুর রেল ও সড়ক যোগাযোগ বিঘ্নিত হচ্ছে। বাঁধ ও জলাধারগুলোতে পানির উচ্চতা ফুলে ফেঁপে উঠেছে। দুর্যোগ মোকাবিলায় প্রদেশজুড়ে কয়েক হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here