অনলাইন ডেস্কঃ আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার সম্মানে এবার মেক্সিকোতে গির্জা খোলা হয়েছে। যার নামকরণ করা হয় ম্যারাডোনিয়ান চার্চ। ফুটবল ঈশ্বরের জীবনকে কেন্দ্র করে স্মৃতিময় বেশকিছু ছবি ফুটিয়ে তোলা হয় সেখানে। প্রিয় ফুটবলারকে দেওয়া অঙ্গীকার রাখতে পেরে আনন্দিত গির্জা প্রতিষ্ঠাতা মার্সেলো বুচেট।

২০২০ সালের ২৫ নভেম্বর না ফেরার দেশে পাড়ি জমান দিয়েগো ম্যারাডোনা। এই কিংবদন্তি পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। কিন্তু ভক্তদের হৃদয়ের মনিকোঠায় রয়ে গেছেন ফুটবল ঈশ্বর।

আর্জেন্টাইন এই তারকা ফুটবলার দেশের হয়ে কিংবা ক্লাব পর্যায়ে যেখানেই খেলেছেন, রেখেছেন কিংবদন্তিতুল্য স্বাক্ষর। ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপে তার বীরত্ব স্মৃতিতে উজ্জ্বল, অমলিন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় গোল, তাকে দেশের ফুটবল ইতিহাসে সর্বকালের সেরা বানিয়েছে।
১৯৯৮ সালের ৩০ অক্টোবর তিন আর্জেন্টাইন ভক্ত মিলে ম্যারাডোনার নামে আলাদা একটি ধর্ম ও উপাসনালয় প্রতিষ্ঠা করেন। সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলারের মৃত্যুর পর, এবার তার সম্মানে মেক্সিকোর পুয়েবলা শহরে একটি গির্জা খোলা হয়েছে। যার নামকরণ করা হয় ম্যারাডোনিয়ান চার্চ।
গির্জার সামনে দুটি ফুলদানির ওপর ফুটবল সাজিয়ে রাখা হয়েছে। প্রবেশের পথে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা ম্যারাডোনার হাস্যোজ্জ্বল ছবি আর মাথায় ঐতিহ্যবাহী মেক্সিকান টুপি। যা নজর কাড়বে সবার। বলা যায়, গির্জার ভেতর পুরোটাই কিংবদন্তি ফুটবলারের জীবননির্ভর। যেখানে শোভা পেয়েছে ফুটবল ঈশ্বরের শৈশবের ছবি।
এ ছাড়া কিউবার নেতা ফিদেল কাস্ত্রো ও পোপ ফ্রান্সিসের সঙ্গে দিয়েগো ম্যারাডোনার সাক্ষাতের দুর্লভ মুহূর্তের ছবি চোখে পড়বে। ম্যারাডোনার জন্য এই গির্জা খুলেছেন মার্সেলো বুচেট। কিংবদন্তি ফুটবলারের মৃত্যুর দিন মার্সেলোর মেয়ের জন্মদিন। তাইতো প্রিয় খেলোয়াড়ের জন্য নিজের রেস্টুরেন্টের পাশাপাশি গির্জা প্রতিষ্ঠা করতে পারাতে আনন্দিত তিনি।
মার্সেলো বুচেট বলেন, এটা হলো সেই স্থান যেখানে আমরা ফুটবল নিয়ে কথা বলতে পারি। এটা প্রচলিত অর্থে অন্য চার্চগুলোর মতো নয়। বিষয়টি সবাই গ্রহণ করেছে এতেই আমি খুশি। আমি দেখেছি, এখানে এসে মানুষ ম্যারাডোনার ছবি দেখে কাঁদে। তার জন্য প্রার্থনা করে। গেল বছর আমি আমার ভাই, মা ও ম্যারাডোনাকে হারিয়েছে। তারপরও গির্জা প্রতিষ্ঠা করতে পেরে ভালো লাগছে।
গির্জাটি খোলার পর প্রথম সপ্তাহে এক হাজার দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছে। যার মধ্যে ৮০ শতাংশ নারী। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন মার্সেলো বুচেট। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here