অনলাইন ডেস্কঃ টাঙ্গাইলের গোপালপুরে করোনা মহামারিতে কর্মহীন হয়ে অর্থাভাবে ৪৫ হাজার টাকায় তিনমাস বয়সী সন্তানকে বিক্রির ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন শুক্রবার শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে।

গৃহবধূ রাবেয়া জানান, হতাশায় তার স্বামী মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছিল। পাওনা টাকা পরিশোধ ও সংসারে অভাবের কারণে তাই ১৬ দিন আগে তিন মাস বয়সী সন্তান আলহাজকে বাইশকাইল গৈজারপাড়া গ্রামের সবুজ মিয়া ও স্বপ্না দম্পতির নিকট ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানান, সবুজ ও স্বপ্না দম্পতি নিঃসন্তান। তারা শাহ আলম-রাবেয়া দম্পতির অনটনের সুযোগ নিয়ে টাকার বিনিময়ে শিশুটি কিনে নেন। আদালতের অনুমতি নিয়ে দত্তক নেওয়ার বিধান রয়েছে। কিন্তু তারা সেটা করেনি।

ওসি মোশাররফ হোসেন বলেন, স্থানীয় প্রশাসন সবুজ মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শিশু আলহাজকে উদ্ধার করে মা রাবেয়া বেগমের কোলে পৌঁছে দেয়। কেউ আগ্রহ প্রকাশ না করায় এবং মানবিক দিক বিবেচনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি বলেও জানান তিনি।

গোপালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পারভেজ মল্লিক বলেন, ঘটনার নেপথ্যে দারিদ্রতা। পরিবারটিকে সার্বিকভাবে সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। রাবেয়া বেগমকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে আয়া পদে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তাও প্রদান করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনি জানান, ওই শিশুর যাবতীয় ভরণ-পোষণ ও লেখাপড়ার দায়িত্ব নেবে জেলা প্রশাসন। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here