অনলাইন ডেস্কঃ পাকিস্তান সুপার লিগের দ্বিতীয় এলিমেনেটর ম্যাচে ঘটে গেল অদ্ভুত কাণ্ড। ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের বিপক্ষে পেশোয়ার জালমি পাক্কা তিন ওভার ফিল্ডিং করলো ১০ জন নিয়ে। পেসার মোহাম্মদ ইরফানের ইনজুরি নিয়ে সন্তুষ্ট না হওয়ায় আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে অতিরিক্ত ফিল্ডার মাঠে নামতে পারেনি পেশোয়ার।

ম্যাচের ১১তম ওভারে নিজের বোলিং স্পেল শেষ করতে আসেন ইরফান। প্রথম বল করার পরই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। বিরতি দিয়ে বোলিং করে নিজের ওভার শেষ করেন বাঁহাতি পেসার। এরপর মাঠ থেকে উঠে যান। ১২তম ওভারে সীমানার কাছে তার পায়ের চিকিৎসা দেওয়া হয়। এ সময়ে ফিল্ডিংয়ে নামেন হায়দার আলী। ওভার শেষে আম্পায়ার আলীম দার ফিল্ডার হায়দার আলীকে মাঠ থেকে উঠে যেতে বলেন। কারণ খেলায় দেরি হচ্ছিল। কিন্তু মাঠে নামতে পারেননি ইরফান। ফলে ১৩তম ওভারে ১০ জন নিয়ে ফিল্ডিং করে পেশোয়ার। ১৪তম ওভারে অতিরিক্ত ফিল্ডার নামানোর আবেদন করেছিল পেশোয়ার। কিন্তু আলীম দার কোনোভাবেই ইরফানের ইনজুরি নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন না। এজন্য অতিরিক্ত ফিল্ডারকে মাঠে নামতে দেননি। ১৫তম ওভারেও একই অবস্থা।

১৬তম ওভারে আম্পায়ারের সঙ্গ দীর্ঘ আলাপ করেন পেশোয়োরের অধিনায়ক ওয়াহাব রিয়াজ ও সিনিয়র ক্রিকেটার শোয়েব মালিক। এরপর হায়দার আলীর পরিবর্তে খালিদ উসমানকে মাঠে নামতে অনুমতি দেন তিনি।

ইনজুরি নিয়ে ইরফান নাটক করছিলেন কি না তা নিশ্চিত হতেই আলীম দার অতিরিক্ত ফিল্ডার মাঠে নামার অনুমতি দেননি। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here