অনলাইন ডেস্কঃ ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্বস্ত ইরাকের সেই আইন আল-আসাদ সামরিক ঘাঁটি থেকে আমেরিকার সমস্ত কমব্যাট সেনা প্রত্যাহার করা হয়েছে। এখন সেখানে শুধুমাত্র মার্কিন সামরিক বাহিনীর কিছু পরামর্শক রয়েছেন।

এ কথা জানিয়েছেন ইরাকের যৌথ অপারেশন্স কমান্ডের মুখপাত্র মেজর জেনারেল তাহসিন আল-খাফাজি।

সোমবার রাশিয়ার বার্তা সংস্থা ‘স্পুৎনিক’ এর আরবি বিভাগকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জেনারেল তাহসিন এই তথ্য তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে আমেরিকার শুধুমাত্র কয়েকজন সামরিক পরামর্শক রয়েছেন এবং একজন ইরাকি কমান্ডারের অধীনে ঘাঁটি পরিচালিত হচ্ছে।

২০২০ সালের ৮ জানুয়ারি ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি এক ডজনের বেশি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে এই ঘাঁটিতে হামলা চালায় যার প্রতিটি ক্ষেপণাস্ত্রের ব্যবহৃত ওয়ারহেডের ওজন ছিল এক হাজার পাউন্ডের বেশি। ওই হামলায় ঘাঁটিটি মারাত্মকভাবে বিধ্বস্ত হয় এবং সারা বিশ্বের গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়ে ওঠে।

আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের তৎকালীন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে মার্কিন সেনারা ড্রোন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়ে হত্যা করার পর প্রতিশোধ হিসেবে আইআরজিসি আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে হামলা চালায়। আধুনিক ইতিহাসে এটিই ছিল মার্কিন সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। ইরানি কর্মকর্তারা একে মার্কিন বাহিনীর ওপর প্রথম থাপ্পড় বলে উল্লেখ করেছেন। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here