অনলাইন ডেস্কঃ বিদেশে প্রচুর পরিমাণ সম্পত্তি আছে বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রায় বাচ্চানের। এর জেরে পানামা পেপার্সে নাম ওঠায় মামলা হয় তার বিরুদ্ধে। সেই মামলার সূত্র ধরেই সোমবার (২০ ডিসেম্বর) ভারতের এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) কার্যালয়ে তলব করা হয়েছে ঐশ্বরিয়াকে।

আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, ফরেন এক্সচেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট অ্যাক্ট বা ফেমা আইনের আওতায় এর আগেও দু’বার তলব করা হয়েছিল ঐশ্বরিয়াকে। তবে হাজিরার জন্য সময় চেয়েছিলেন তিনি। শোনা গেছে, এবারেও একইভাবে সময় চেয়েছেন অভিনেত্রী। তবে এই আবেদন গৃহীত হয়েছে কি না তা জানা যায়নি এখনও।

উল্লেখ্য, পানামা নথি হলো ১ কোটি ১৫ লাখ গোপন নথি, যা ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে ফাঁস হয়েছিল। বিভিন্ন দেশের প্রথম সারির ব্যক্তিদের বিদেশে কত পরিমাণ সম্পত্তি গচ্ছিত আছে, তা নিয়ে তথ্য প্রকাশ করা হয়েছিল সে সময়। মূলত কর ফাঁকি দেয়ার জন্যই বিদেশে সম্পদ গচ্ছিত রাখা হয়েছিল বলে দাবি করা হয়।

এই নথিতে নাম আসার জন্য পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রিত্ব খোয়াতে হয়েছে নওয়াজ শরিফকে। এতে নাম এসেছে অমিতাভ বাচ্চানসহ বেশ কিছু বিশিষ্ট ভারতীয়েরও।

পানামা নথির দ্বিতীয় দফার তথ্য প্রকাশ্যে আসতেই দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছিল, বিষয়টির ওপর তারা নজর রাখছে। সরকারের তরফে খবর, প্রথম পর্যায়ের পানামা নথির তথ্যের ভিত্তিতে বিভিন্ন তদন্ত সংস্থা ৭৪টি মামলা করে তদন্ত শুরু করে। এর মধ্যে ৬২টির ক্ষেত্রে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া গেছে। ফলে সরকার ১১৪০ কোটি রুপির অঘোষিত সম্পত্তি চিহ্নিত করতে পেরেছে। এরপর এই মামলা সম্পর্কে খবর তেমনভাবে প্রকাশ্যে আসেনি। ঐশ্বরিয়াকে তলব করার মধ্যে দিয়ে ফের তা প্রকাশ্যে এলো। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here