অনলাইন ডেস্কঃ স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথের করোনাক্রান্ত হওয়ার দুঃসংবাদ বুধবার পেয়েছিল টাইগাররা। এ কারণে আইসোলেশনে রাখা হয়েছিল অধিনায়ক মুমিনুল হকসহ দলের নয় সদস্যকে। তবে একদিন পরই বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন নিউজিল্যান্ড থেকে দেন সুখবর।

বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) সকালে সুজন জানিয়েছেন, নতুন করে আর কোনো করোনা পজিটিভ নেই বাংলাদেশ দলে। তাই কোয়ারেন্টিন থেকে বের হয়ে অন্য হোটেলে চলে যেতে পারবেন তারা।


কিন্তু এরপরই আসে দুঃসংবাদ। নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে নতুন করে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ দলের সবাইকেই আরও তিন দিন রুম কোয়ারেন্টিন করতে হবে। করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হলেও হেরাথের সঙ্গে একই ফ্লাইটে থাকায় ‘ইয়েলো ব্যান্ড’ পরতে হবে সবাইকেই। মাঠে গিয়ে অনুশীলন, জিমনেসিয়ামে যাওয়া-এসবও বন্ধ থাকবে। এদিকে করোনায় আক্রান্ত হেরাথকে ইতোমধ্যে নিয়ে যাওয়া হয়েছে কোভিড সেন্টারেই।
কয়েক দিন ধরেই ক্রাইস্টচার্চের আবহাওয়া তেমন সুবিধার নয়। টানা বৃষ্টি আর কনকনে ঠান্ডায় বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের জবুথবু অবস্থা। তবে কালকের দিনটা ছিল অন্য রকম। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী বলে কথা! সুদূর নিউজিল্যান্ডে থেকেও ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি পার্কে জাতীয় পতাকা হাতে জাতীয় সংগীত গেয়েছেন মুশফিকুর রহিম-তাসকিন আহমেদরা। উপলক্ষটাতে অন্য রকম একটা স্বস্তির আনন্দও ছিল বাংলাদেশ দলের মধ্যে। কোয়ারেন্টিনের বিধিনিষেধের পর অবশেষে মাঠের চেহারা যে দেখতে পেলেন সবাই!

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচ খেলতে চলতি বছর দ্বিতীয়বারের মতো নিউজিল্যান্ডে গিয়েছে জাতীয় দল।

এ বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চে বাংলাদেশ সীমিত ওভারের ম্যাচ খেলতে নিউজিল্যান্ড গিয়েছিল। সে সময় তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলেছিল বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here