অনলাইন ডেস্কঃ করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ)। তবে যেসব দেশের সাথে এয়ার বাবল চুক্তি রয়েছে ভারতের, সেসব দেশে ফ্লাইট চলাচলে কোনো বাধা নেই বলে বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে ডিজিসিএ।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানা যায়, ৩১ জানুয়ারির পর আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু হলেও সব রুটে নাও চলতে পারে ভারতীয় যাত্রীবাহী উড়োজাহাজগুলো। করোনা সংক্রমণ এড়াতে বাছাই করা কিছু রুটে চলতে পারে ভারতের বিমান। এছাড়া জানুয়ারির ৩১ তারিখ পর্যন্ত যাত্রীবাহী বিমানের ফ্লাইট বন্ধ থাকলেও বরাবরের মতো চালু থাকবে পণ্যবাহী আন্তর্জাতিক কার্গো ফ্লাইটগুলো।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর ২০২০ সালে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয় ভারত সরকার। অবশ্য তার কিছুদিন পর এয়ার বাবল চুক্তির অধীনে শর্তসাপেক্ষে কয়েকটি দেশের সাথে ফ্লাইট যোগাযোগ চালু করে দেশটি। মহামারির কারণে প্রায় দু’বছর স্থগিত রাখার পর গত ২৬ নভেম্বর এক বিজ্ঞপ্তিতে ডিজিসিএ জানিয়েছিল, আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট ফের শুরু করছে ভারতের সরকার।

এর মধ্যেই গত ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হয় ওমিক্রন। তার দু’দিন পর এই ধরনটিকে উদ্বেগজনক ধরন হিসেবে তালিকভুক্ত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ইতোমধ্যে বিশ্বের ৫৭ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ওমিক্রন। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here