অনলাইন ডেস্কঃ সবচেয়ে বড় আর্থিক কেলেঙ্কারির প্যান্ডোরা পেপার্সে আট বাংলাদেশির নাম পাওয়া গেছে। সোমবার (৬ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় মধ্যরাতে ফাঁসকৃত গোপনীয় আর্থিক দলিলপত্রে ওই ৮ বাংলাদেশির নাম প্রকাশ করা হয়।

ওয়াশিংটনভিত্তিক অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়াম ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টসের (আইসিআইজে) সম্পদশালীদের নানা অনিয়ম ও গোপন তথ্য ফাঁস করে।

নতুন এই তালিকায় সাত লাখ ৪০ হাজার ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম প্রকাশ করা হয়েছে। প্যান্ডোরা পেপার্সে যে আট বাংলাদেশির নাম পাওয়া গেছে তাদের সবারই অন্যান্য দেশের নাগরিকত্বও আছে। এর মধ্যে আছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া ও আর্জেন্টিনা।

তবে এই তালিকায় ঠাঁই পাওয়া বাংলাদেশিদের অবৈধ কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এমনকি যে সাংবাদিকরা এই তথ্য ফাঁস করেছেন তারাও সেটি নিশ্চিত করতে পারেননি।

সেই তালিকায় নিহাদ কবীর নামের এক বাংলাদেশি নারী ব্যবসায়ীর নাম রয়েছে। রাজধানী ঢাকার ইন্দিরা রোডে তার একটি বাসা রয়েছে বলে নথিতে বলা হয়েছে। তিনি মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২০০৮ সালের আগস্টে ব্রিটিশ ভার্জিন আইল্যান্ডে ক্যাপিটাল ফেয়ার হোল্ডিংস লিমিটেড নামে একটি কোম্পানি তার নামে নিবন্ধিত হয়।

এই প্যান্ডোরা পেপার্স তালিকায় ইসলাম মঞ্জুরুল নামের আরেক বাংলাদেশি আছেন। ব্রিটিশ ভার্জিন আইল্যান্ডে ওরিয়েন্টাল এগ্রিকালচারাল কেমিক্যাল কোম্পানি নামে নিবন্ধিত একটি কোম্পানির মালিক তিনি। তার ঠিকানা ঢাকার গুলশানে এবং তার যুক্তরাজ্যের পরিচয়ও আছে।

অন্যরা হলেন সাইদুল হুদা চৌধুরী, আনিতা রাণী ভৌমিক, সাকিনা মিরালি, মোহাম্মদ ভাই, ওয়ালটার প্রামাদ ও ডেনিয়েল ওরনেস্টো আয়ুবাট্টি। এদের মধ্যে সাইদুল হুদা, সাকিনা ও মোহাম্মদ ভাইয়ের ঠিকানা ঢাকার গুলশান ও আনিতা রাণীর ঠিকানা পুরান ঢাকার চকবাজার উল্লেখ করা হয়েছে।

নথিতে বেবেন ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানির মালিক সাইদুল, ইন্টারপ্রাইজ হোল্ডিংস লিমিটেডের মালিক আনিতা, মুন রেকার সার্ভিস করপোরেশনের মালিক সাকিনা, ১৯৩৬ হোল্ডিংস লিমিটেডের মোহাম্মদ ভাই, সিল্ট লিংক লিমিটেডের মালিক প্রামাদ ও কুডেল লিমিডেটের মালিক ডেনিয়েলের নাম প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে প্রথম দফায় প্যান্ডোরা পেপার্স প্রকাশিত নথিতে নেপালের এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী আবদুল আউয়াল মিন্টুর নাম উল্লেখ করা হয়েছিল।

আইসিআইজে পান্ডোরা পেপার্সের তথ্য প্রকাশ করেনি তবে স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে বিনিময় করেছে।

পেন্ডোরা পেপার্সটি এক কোটি ২০ লাখ নথির সংকলনে তৈরি করা হয়েছে। নথিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধনী ব্যক্তি, রাজনীতিবিদ ও ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের অর্থ পাচার, কর ফাঁকি এবং গোপন সম্পদের তথ্য রয়েছে।

এসব তথ্য সংগ্রহে বিশ্বের ১১৭টি দেশের ৬০০ সাংবাদিক কাজ করেছেন। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here