অনলাইন ডেস্কঃ ব্যালন ডি’অর জয়ে এবার ফেভারিট ছিলেন বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার লেওয়ানডস্কি। বছরজুড়ে দুর্দান্ত খেলেছেন তিনি।  বায়ার্নের গোলমেশিন বলা হয় তাকে।

পোল্যান্ডের মানুষ তার ব্যালন ডি’অর জয়ের আশায় বুক বেঁধেছিল।

কিন্তু পোলিশদের হতাশ করে পুরস্কারটা ওঠে লিওনেল মেসির হাতে।

হতাশার কালোমেঘকে হালকা করতে পোল্যান্ডের শহর ওয়েলিকজাকার জনগণ অভিনব এক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

লেওয়ানডস্কিকেই ব্যালন ডি’অর জয়ী হিসেবে মনে মনে মেনে নিয়েছে তারা।

যে কারণে লেওয়ার জন্য পুরস্কারেরও আয়োজন করেছে তারা।

যদিও মেসির হাতে ওঠা সোনালি ফুটবল দিতে পারছেন না তারা লেওয়াকে।

তবে তাকে সান্ত্বনা হিসেবে লবন দিয়ে তৈরি একটি বল বানিয়ে দেবে ওয়েলিকজাকার জনগণ।

লবনের বল! এটা কি লেওয়ানডস্কিকে স্বান্তনা দান নাকি ব্যালন ডি’অর না পাওয়ায় তার সঙ্গে মশকরা?

না ব্যাপারটি সত্যি সম্মানের। কারণ ওয়েলিকজাকার শহরটি লবণের খনির জন্য বিখ্যাত।  নিজ এলাকার খনিজ লবনের জন্য গবির্ত তারা।  নিজেদের এই লবণকে ‘সাদা সোনা’ বলে আখ্যা দেয় তারা।

এ বিষয়ে ওয়েলিকজাকার সিটি কাউন্সিলর কামিল জাস্ত্রাবেস্কি এক টুইটে লেখেন, ‘রবের্ত লেওয়ানডস্কির সঙ্গে অনেক বড় অবিচার করা হয়েছে।  ওয়েলিকজাকার একজন নাগরিক হিসেবে আমি বলছি, এই শহর তাকে বিশ্বের সেরা ফুটবলার হিসেবে ঘোষণা করছে।  লেওয়াকে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়ের স্বীকৃতি দেব আমরা।  শহরের অনেকেই আমাদের অধিনায়ককে (লেওয়ানডস্কি) লবণের বল উপহার দিতে চান। অতীতে একসময় লবণকে “সাদা সোনা” বলা হতো। তাই এটার ঐতিহাসিক ও ভৌগোলিক ভিত্তি রয়েছে। আমার ধারণা মুদ্রাস্ফীতি ও মন্দার এ সময়ে ওয়েলিকজাকার সে জন্য (লবণের বল) পর্যাপ্ত লবণ সংগ্রহ করতে পারবে।’ সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here