অনলাইন ডেস্কঃ দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছরের কার্যকালের পর গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন জার্মানির চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মার্কেল। আগামী সপ্তাহে নতুন সরকারের কার্যভার গ্রহণ করার কথা।

ক্ষমতা হস্তান্তরের ঠিক আগে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিলেন জার্মানির চ্যান্সেলর। যথাযোগ্য সামরিক মর্যাদার সঙ্গে বার্লিনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দফতরে সেই অনুষ্ঠানে কুচকাওয়াজ ও সৈন্যদের অর্কেস্ট্রায় বাজনা শোনানো হয়।

দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছর সরকার প্রধান হিসেবে বিদায় নেবার আগে নিজের ভাষণে মার্কেল গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ রক্ষার পক্ষে সওয়াল করলেন। তার মতে, যখনই কোথাও ঘৃণা ও সহিংসতাকে নিজস্ব স্বার্থ রক্ষার বৈধ হাতিয়ার হিসেবে গণ্য করা হয়, তখনই গণতন্ত্রকামী হিসেবে আমাদের সহিষ্ণুতার সীমা শেষ হওয়া উচিত। তিনি জার্মানির মানুষের উদ্দেশে ঘৃণার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানালেন। অন্যের দৃষ্টিভঙ্গি থেকেও সবসময়ে জগতকে দেখার পরামর্শ দেন তিনি। কখনোই আশাবাদ ত্যাগ না করারও ডাক দেন মার্কেল।

মার্কেল নিজের কার্যকালে বিভিন্ন সংকটের উল্লেখ করেন। জলবায়ু পরিবর্তন, ডিজিটালাইজেশন, শরণার্থী সংকটের মতো বিশাল চ্যালঞ্জে সামলাতে নিজের অভিজ্ঞতাও তুলে ধরেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ও বহুপাক্ষিক কাঠামোগুলিকে মার্কেল অপরিহার্য বলে বর্ণনা করেন। রাজনীতিক ও মানুষ হিসেবে তিনি এমন চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও নিজেকে পরিপূর্ণ মনে করেছেন বলে জানান তিনি।

বিদায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মার্কেলের সম্ভাব্য উত্তরসূরী ওলাফ শলৎস। ম্যার্কেল তাকে ও তার ভবিষ্যৎ প্রশাসনকে আন্তরিক শুভকামনা জানান। প্রেসিডেন্ট ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ারও মার্কেলকে বিদায় জানাতে উপস্থিত ছিলেন। করোনা সংকটের কারণে অনুষ্ঠানে বেশি সংখ্যক অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো সম্ভব হয়নি। তবে চরম দক্ষিণপন্থি এএফডি দল ছাড়া জার্মানির অন্য সব রাজনৈতিক শক্তির প্রতিনিধিরা মার্কেলের বিদায়ী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন।

আনুষ্ঠানিক বিদায়ের পরেও কয়েকদিন কার্যনির্বাহী চ্যান্সেলর হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে হবে মার্কেলকে। বিশেষ করে করোনা সংকটের কারণে জার্মানিতে এই মুহূর্তে বিদায়ী সরকারের পক্ষেও নিষ্ক্রিয় হয়ে থাকা সম্ভব নয়। ভবিষ্যৎ সরকারের সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে করোনা সংকট মোকাবিলায় ইতোমধ্যেই একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হয়েছে। সূত্রঃ বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here