অনলাইন ডেস্কঃ ১১ দফা দাবিতে আজও রামপুরায় সড়কে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।  শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রামপুরা ব্রিজের পাশে হাতিরঝিল কর্নারে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন।  পরে পুলিশ এসে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।

ছুটির দিনেও খিলগাঁও মডেল হাইস্কুল, খিলগাঁও মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে অংশ নেন।  ১১ দফা দাবিতে নানা স্লোগান দেন তারা।  তবে অন্যান্য দিনের মতো শিক্ষার্থীরা যান চলাচল বন্ধ করেননি। তারা সড়কের এক পাশে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন।

এদিকে রামপুরায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে কেন্দ্র করে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।  রামপুরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, আন্দোলনকে কেন্দ্র করে যেকোনো ধরনের অরাজকতা ঠেকাতে তারা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন।  শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর গত ৭ নভেম্বর থেকে ঢাকাসহ সারা দেশে বাসের ভাড়া ২৬ থেকে ২৭ শতাংশ বাড়ানো হয়।  পরিপ্রেক্ষিতে ১৮ নভেম্বর অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে ২৪ নভেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন।  পরে রামপুরায় মাঈনুদ্দিন নামে এক শিক্ষার্থী অনাবিল পরিবহণ বাসের চাপায় নিহত হয়।

তার পর থেকে নিরাপদ সড়ক, অর্ধেক ভাড়াসহ ১১ দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার রাজধানীতে বাসে অর্ধেক ভাড়ার দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেয় পরিবহন মালিক সমিতি। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here