অনলাইন ডেস্কঃ বিবিসির একটি তথ্যচিত্রের সমালোচনা করেছেন ব্রিটিশ রাজপরিবারের সদস্যরা। তারা যৌথ বিবৃতিতে এই তথ্যচিত্রকে ভিত্তিহীন ও অতিরঞ্জিত বলে দাবি করেছেন। এ তথ্যচিত্র প্রচারের পর রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, প্রিন্স চার্লস ও উইলিয়াম ক্ষুব্ধ হয়েছেন। প্রচারের আগে রাজপরিবারকে এ তথ্যচিত্র দেখাতে অস্বীকৃতি জানায় বিবিসি।

বিবিসির ওই তথ্যচিত্রে প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগান মার্কেল রাজপরিবারের দায়িত্ব ছাড়ার আগে গণমাধ্যম সামলানোর দায়িত্ব নিয়ে নেপথ্যের ঘটনা দেখানো হয়।

হ্যারি এবং তার বড় ভাই উইলিয়াম কীভাবে গণমাধ্যম সামলেছিলেন তা নিয়ে দ্য প্রিন্সেস অ্যান্ড দ্য প্রেস শিরোনামের তথ্যচিত্রে আলোচনা করা হয়েছে। দুই পর্বের তথ্যচিত্রের প্রথম পর্ব স্থানীয় সময় সোমবার রাতে প্রচার করা হয়।

এই তথ্যচিত্রে প্রিন্স হ্যারিকে গণমাধ্যমের প্রতি বিরূপ মনোভাব প্রকাশ করতে দেখা যায়। এখানে দেখানো হয় ২০১৬ সাল থেকে মার্কিন অভিনেত্রী মেগানের সঙ্গে ডেটিং শুরু করার পরে হ্যারি এবং তার বড় ভাই উইলিয়াম কীভাবে গণমাধ্যম সামলেছিলেন। প্রাসাদ কর্মীদের ওপর মেগানের কথিত উত্পীড়নের বিষয়েও তথ্যচিত্রে আলোচনা করা হয়েছে।

বাকিংহাম প্যালেস, ক্লিয়ারেন্স হাউস ও কেনসিংটন প্যালেসের যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, সুস্থ গণতন্ত্রের জন্য একটি মুক্ত ও দায়িত্বশীল সংবাদপত্র অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু প্রায়ই অজানা সূত্র থেকে ভিত্তিহীন ও অতিরঞ্জিত দাবি করা হয় এবং তথ্য হিসেবে তা উপস্থাপন করা হয়। কিন্তু যখন বিবিসিসহ অন্য কেউ তা বিশ্বাসযোগ্যতা দেয়, তখন তা হতাশাজনক। রাজপরিবারের আইনজীবীরা বিবিসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রস্তুত বলে জানা গেছে। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here