অনলাইন ডেস্কঃ ঝড় ও রেকর্ড বৃষ্টিপাতে স্মরণকালের ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের শিকার কানাডা। দেশটির ব্রিটিশ কলাম্বিয়াসহ বেশ কয়েকটি প্রদেশে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। এখনো আটকা আছেন কয়েক হাজার বাসিন্দা। ভেঙে পড়েছে যোগাযোগব্যবস্থা। বন্যায় কয়েক হাজার গবাদিপশুর মৃত্যু হয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিমান ও সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এদিকে খাবার সরবরাহসহ ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

 স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যা ও ভূমিধসের কবলে কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়াসহ বেশ কয়েকটি প্রদেশ। যেদিকে চোখ যায় কেবল ভূমিধস ও ঝড়ের তাণ্ডবের ধ্বংসযজ্ঞ। ভয়াবহ বন্যায় পাহাড়ি ঢলে ভেঙে গেছে মহাসড়ক। ভূমিধসের কারণে ব্যাহত হচ্ছে যোগাযোগব্যবস্থা। তবে বেশ কয়েক জায়গায় ঝুঁকি নিয়েই যানবাহন চলতে দেখা গেছে।
ভয়াবহ বন্যা ও ভূমধসে এখনো বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের খোঁজে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। এ ছাড়া আটকে পড়াদের উদ্ধারে হেলিকপ্টারসহ বিমান বাহিনী মোতায়েন করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। হেলিকপ্টারে করে দেওয়া হচ্ছে খাবার ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। শুধু স্থানীয় অধিবাসীরাই নন হোপ টাউনে দেড় হাজারের বেশি পর্যটক আটকা পড়েছে বলে জানিয়েছে গণমাধ্যম।
তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্ধার কিংবা দুর্যোগকবলিত এলাকা খালি করাসহ সব ধরনের সহযোগিতার জন্য এরই মধ্যে সশস্ত্র বাহিনীর কয়েকশ’ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। আরো কয়েক হাজার সেনাকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আমরা এতটুকু নিশ্চিত করতে পারি। আমাদের কখনো খাদ্য সংকট হবে না।
ঝড়ের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কানাডার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কৃষি অঞ্চল ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায়। বন্যা ও ভূমিধসে কয়েক হাজার গবাদিপশুর মৃত্যু হয়েছে। এখনো আটকে আছে আরো কয়েক হাজার গবাদিপশু। এখান থেকেই দুধ, ডিম ও পোল্ট্রিসামগ্রী চাহিদার অধিকাংশ জোগান দিয়ে থাকেন খামারিরা। তবে আটকেপড়া গবাদিপশু উদ্ধার ও চিকিৎসায় এরই মধ্যে পশু চিকিৎসদের মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কৃষিমন্ত্রী। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here