অনলাইন ডেস্কঃ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ব্যাটারদের ব্যাট কথা না বললেও সমালোচকদের এক হাত নিয়েছিলেন দলের সিনিয়র দুই তারকা।

প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে সুপার টুয়েলভে খেলা নিয়ে শঙ্কায় পড়েছিল টাইগাররা। তখন ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে মাহমুদউল্লাহদের খেলা নিয়ে প্রকাশ্যে সমালোচনা করেন খোদ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

এর পর পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে পেইন কিলারের উদাহরণ দিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। অস্বাস্থ্যকর সমালোচনা না করতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন।

মুশফিক তো ছিলেন এক কাঠি এগিয়ে। সমালোচকদের আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখতে বলেছিলেন।
সমর্থক-সমালোচকদের  কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকদের এমন ঝাঁঝালো প্রতিউত্তর ভালোভাবে নেয়নি অনেকে।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রল, মিমে মাতেন বাংলাদেশি নেটিজেনরা।

তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপ মিশন শেষ করার দিনে বিষয়টি বোধগম্য হয়েছে বাংলাদেশের অধিনায়কের। তিনি জানালেন, আবেগি হয়েই এমন উত্তর দিয়েছেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কথা যেটা বললেন, বিশেষ করে আমি বলছি সম্ভবত আমি আবেগি হয়ে এমন উত্তর দিয়েছি। সমালোচনা সবসময়ই হবে, আমি কখনোই বলিনি যে সমালোচনা হবে না। সমালোচনা হবে এবং এটা আমাদের মানিয়ে নিতে হবে। কারণ দেশ ও দলের জন্য পারফর্ম করা আমাদের দায়িত্ব। যখন আপনি পারফর্ম করবেন না তখন আপনাকে সমালোচিত হতেই হবে। সবকিছুরই একটা নির্দিষ্ট পয়েন্ট থাকে। অনেক কিছু অনেক সময় বুঝি আবার হয়তো ইগনোরও করি। ওমানের ওই সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলাম সেটা আমি আবেগি হয়ে বলেছিলাম। অনেক সময় আমার ভেতর অনেক আবেগ করে।’ সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here