অনলাইন ডেস্কঃ গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার বি ইউনিটে প্রথম হয়েছেন রাজধানী ডেমরার দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী রাফিদ হাসান সাফওয়ান। ভর্তি পরীক্ষায় তার নম্বর ৯৩ দশমিক ৭৫। গত ২৪ অক্টোবর দেশের ২২টি কেন্দ্রে ১০০ নম্বরের (এমসিকিউ) এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

সাফওয়ান বলেন, আমি দেড় বছর ধরে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছি। বাংলা-ইংরেজির জন্য বিভিন্ন ধরনের বই পড়েছি, কারণ আমার কখনো এক বইয়ের উপর ভরসা ছিল না। একাধিক বই পড়তে আমার ভালো লাগে। যে কোনো বিষয় পড়ার সময় বিস্তারিত জানতে পছন্দ করি। যখন যে প্রশ্নটা বুঝতাম না ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করতাম।
এছাড়া গত দেড় বছরের এই সময়টাতে প্রায় ২০০টিরও বেশি অনলাইন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছি; যা আমার ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতিতে অনেক সহায়তা করেছে। বিভিন্ন অনলাইন পরীক্ষায় যে প্রশ্নগুলো পারতাম না সেগুলো আবার ভালো করে পড়ে বারবার রিভিশন দিয়েছি।
সাফওয়ান আরও বলেন, আমি আইসিটি প্রস্তুতি নিয়েছি ২ তারিখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় খ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার দেওয়ার পর। কিন্তু পরীক্ষাটি আশানুরূপ মনে হয়নি। তাই স্কুল বোর্ডের বিভিন্ন প্রশ্ন সমাধান করেছি এবং প্রশ্নগুলো যেসব টপিক থেকে দেওয়া হতো সেই টপিকগুলো ভালো করে অধ্যয়ন করেছি।
তিনি আরও বলেন, আমি একেবারে ছোটবেলায় অর্থাৎ স্কুলে ভর্তি হওয়ার আগে থেকেই পত্রিকা পড়ায় অভ্যস্ত ছিলাম। পত্রিকায় গল্পের পাতা ও খেলার পাতা বেশি পড়তাম। এমনকি পত্রিকা পড়ায় বেশি অভ্যস্ত দেখে বাসায় পত্রিকা আসা বন্ধ করে দিয়েছিল। তবে পড়ালেখায় কোনো প্রতিবন্ধকতা ছিল না। পরিবার সবসময় আমাকে সহযোগিতা করেছে।

স্বপ্ন দেখার বিষয়ে তিনি বলেন, একাদশ শ্রেণির শেষ দিকে প্রথম হওয়ার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু পরীক্ষা ঘনিয়ে আসতে আসতে নিজেকে কিছুটা দুর্বল মনে হতো। পরীক্ষা দেওয়ার পর মনে হয়েছে সর্বোচ্চ নম্বর না পেলেও এর কাছাকাছি থাকব। নিজের মধ্যে সবসময় একটা অনুপ্রেরণা কাজ করত যে, আমি ১ম হলে সবাই আমাকে অভিনন্দন জানাবে সবার কাছ থেকে ভালোবাসা পাব। এসব চিন্তা মাথায় কাজ করত; যা আমাকে পড়াশোনায় অনুপ্রেরণা যোগাতে সহযোগিতা করেছে।
সাফওয়ানের প্রথম হওয়া নিয়ে তার বাবা-মা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত।
ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বিষয়ে তিনি বলেন, আমি যেহেতু মাদ্রাসা থেকে উঠে এসেছি। আমার পরিবারের সবাই যেহেতু ইসলামিক মন-মানসিকতার তাই যেখানেই থাকি নিজেকে সবসময় ইসলামের খেদমতে সংশ্লিষ্ট রাখতে চাই। যে কোনো পেশা থেকেই ইসলামের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here