অনলাইন ডেস্কঃ কেনিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় অঞ্চলের এলাকাগুলোতে গরম আর অনাহারে মারা যাচ্ছে শত শত গবাদি পশু। অনাবৃষ্টির কারণে জমিতে ফসল না হওয়ায় দেখা দিয়েছে তীব্র খাদ্য সংকট। জাতিসংঘ বলছে, এখনই ব্যবস্থা না নিলে দেখা দিতে পারে মানবিক বিপর্যয়।

এলাকায় হাঁটতে থাকলে দেখা যাবে যেখানে সেখানে মরে পড়ে আছে গৃহপালিত পশু। মূলত খরার কারণে ফসল না হওয়ায়ই এমন বিপর্যয় ঘটছে। কয়েক মৌসুমে এলাকাটিতে কোনো ফসলেরই চাষ হচ্ছে না। ফলে তীব্র খাদ্য সংকটের আশঙ্কা করছে জাতিসংঘের খাদ্য বিষয়ক সংস্থা, ডব্লিউএফপি। তারা বলছে, অপুষ্টিতে ভুগছে সেখানকার প্রায় ৬ লাখ নারী ও শিশু। নভেম্বর পর্যন্ত অঞ্চলটির ২৪ লাখ মানুষ খাদ্য সংকটে থাকবে বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেছে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি।

কেনিয়ার দুর্যোগ মোকাবেলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাউরিকা ওনইয়ানগো জানান, এই বিপর্যয়ের কথা আগেই অনুমান করেছিলেন তারা। অঞ্চলটিতে প্রতি পাঁচ থেকে ১০ বছর পর পরই খরা হয়। কিন্তু এই বছর এখন পর্যন্ত তেমন বৃষ্টি হয়নি। আর এর প্রভাবই পড়তে শুরু করেছে। ক্ষেত খামারে কোনো ফসলই ফলছে না বলেও স্বীকার করেন তিনি।

তীব্র খরার প্রভাব পড়ছে বাজারেও। চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শাক-সবজিসহ নিত্যপণ্য। যা দুর্যোগের এই সময়ে সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here