অনলাইন ডেস্কঃ গাইবান্ধা-রংপুর রুটে চারটি আন্তঃনগর ও কয়েকটি লোকাল ট্রেন চলাচল করলেও সহজ ও সাশ্রয়ী হওয়ায় যাত্রীরা রামসাগর এক্সপ্রেস এবং সেভেন আপ ট্রেনে যাতায়াত করত। কিন্তু চালু হওয়ার মাত্র তিন বছরের মাথায় বন্ধ হয়ে যায় বোনারপাড়া-দিনাজপুরগামী রামসাগর এক্সপ্রেস। সেভেন আপও বন্ধ দু’বছর ধরে। এতে বাড়তি টাকা খরচ ও ভোগান্তি বেড়েছে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের।

২০১০ সালে গাইবান্ধাসহ উত্তরের তিন জেলার লাখ লাখ মানুষের যোগাযোগে আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসে রামসাগর এক্সপ্রেস। গাইবান্ধার সাঘাটার বোনারপাড়া থেকে প্রতিদিন ভোর ৬টায় ছেড়ে গাইবান্ধা, রংপুর হয়ে দিনাজপুরে পৌঁছাত যাত্রীদের। এই ট্রেনে চেপে বিভাগীয় শহর রংপুরে চিকিৎসা, ব্যবসা-বাণিজ্য ও দাপ্তরিক কাজকর্ম এবং দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে কাজ শেষে সন্ধ্যায় একই ট্রেনে গাইবান্ধায় ফিরতেন যাত্রীরা। মাত্র তিন বছরের মাথায় ২০১৩ সালে বন্ধ করা হয় জনপ্রিয় এই ট্রেন।

এদিকে বগুড়ার শান্তাহার থেকে লালমনিরহাটগামী লোকাল ট্রেন সেভেন আপও বন্ধ প্রায় দুই বছর ধরে। ফলে বগুড়া, গাইবান্ধা, রংপুর ও লালমনিরহাট জেলায় যোগাযোগের জন্য অতিরিক্ত অর্থ ও সময় ব্যয় করে সড়কপথে ভোগান্তি মেনে নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে হচ্ছে যাত্রীদের। আন্দোলন সংগ্রাম করেও আর চালু হয়নি ট্রেন দুটি।

জনবল সংকটের কারণে রেল দুটি বন্ধ দাবি করে আবারও বন্ধ রেলগুলোর চালুর আশ্বাস দিলেন লালমনিরহাট রেল ডিভিশনের বিভাগীয় ম্যানেজার শাহ সুফি নুর মোহাম্মদ।

রামসাগর এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেন সেভেন আপ ট্রেন দুটি চালু হলে বগুড়া, গাইবান্ধাসহ রংপুর-দিনাজপুর অঞ্চলের যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘবের পাশাপাশি সময় ও অর্থ সাশ্রয় হবে মত সংশ্লিষ্টদের। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here