অনলাইন ডেস্কঃ দীর্ঘ এক মাস ব্রাজিলের সাও পাওলোর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ফুটবলের কালো মানিক পেলে। ৮০ বছর বয়সি ব্রাজিলের এ ফুটবল কিংবদন্তির গত ৪ সেপ্টেম্বর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কোলনের টিউমার বের করা হয়। এর পর থেকে হাসপাতালে ছিলেন তিনি।

সম্প্রতি অ্যাসিড রিফ্লাক্সের কারণে ফের পেলেকে ভর্তি করা হয়েছিল আইসিইউতে।

দুই সপ্তাহ আগে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান পেলে। বৃহস্পতিবার তিনি জানলেন, পুরোপুরি সুস্থ আছেন।

কতটা সুস্থ সে বিষয়ে জানাতে গিয়ে মজা করে পেলে বলেন, ঈশ্বরকে অশেষ ধন্যবাদ যে আমি খুবই সুস্থ অনুভব করছি। মাঠে নেমে ফুটবল খেলতে প্রস্তুত আমি। রোববারের অপেক্ষায় আছি।

এর পর তিনি বলেন, গুরুত্ব দিয়েই বলছি— (আমার অসুস্থতার সময়ে) আপনাদের থেকে যা (শুভকামনা) পেয়েছিলাম তা আমার মনবল বাড়িয়ে দিয়েছিল, আমাকে শক্তিশালী করেছিল। আপনাদের অশেষ ধন্যবাদ।

বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামে এক ভিডিওতে ভক্ত-অনুরাগীদের এসব কথা বলেন পেলে।

এর আগে হাসপাতালে পেলে চিকিৎসাধীন থাকাকালীন ইনস্টাগ্রাম বার্তায় তার মেয়ে কেলি নাসিমেন্টো লিখেছিলেন— ‘বাবা এখন বেশ শক্তিশালী। সুস্থ হয়ে উঠছেন। কয়েক দিনের মধ্যেই বাবা হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন। তবে নিজের বাড়িতে চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।’

ব্রাজিল জাতীয় দল, সান্তোস ও নিউইয়র্ক কসমসে খেলাকালীন খুব কম চোট পাওয়া পেলেকে এই বয়সে এসে বেশ ভুগতে হচ্ছে। বছরের পর বছর ধরে নিতম্বের সমস্যায় ভুগছেন এবং সাহায্য ছাড়া চলাফেরা করতে পারেন না এখন।

ব্রাজিলের হয়ে ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ বিশ্বকাপ জেতা পেলে ৯২ ম্যাচে ৭৭ গোল করে এখনও দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতা। চারটি বিশ্বকাপে গোল করা মাত্র চারজন খেলোয়াড়ের একজন তিনি। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here