অনলাইন ডেস্কঃ স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার কারণে ৮১ বছর বয়সেও একের পর এক পর্বত বেয়ে চলেছেন ব্রিটিশ নাগরিক নিক গার্ডনার। লক্ষ্য স্কটল্যান্ডের ২৮২টি পর্বত জয়। অসুস্থ স্ত্রীর প্রতি সম্মান জানাতে গড়ে তুলেছেন সহায়তা তহবিল। যার অর্থ দান করা হবে আলঝেইমার ও অস্টেওপোরোসিস রোগীদের জন্য। তার এমন অভিযাত্রা আলোড়ন তুলেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

একসময় পর্বতারোহণই ছিল ৮১ বছর বয়সী নিকের প্রধান নেশা। তবে এই বয়সে তার পাহাড় বেয়ে ওঠার পেছনে আছে তীব্র ভালোবাসার এক গল্প।

পাহাড়কে ভালোবেসেই ৩১ বছর আগে শহর ছেড়ে, স্কটল্যান্ডের পাহাড়ি এলাকায় আবাস গড়েন নিক ও তার স্ত্রী জ্যানেট। নিকের ভাষায়, আমার স্ত্রী খুব শান্ত প্রকৃতির ছিল। কখনও মতের অমিল হলেও তা নিয়ে সামান্য তর্কও হয়নি কোনো দিন। খুব নির্ভেজাল, শান্তিপূর্ণ ছিল আমাদের দাম্পত্য জীবন। দুজনে মিলে পাহাড়ি এলাকায় বসবাস শুরু করেছিলাম। ৩০ বছর ধরে ২৪ ঘণ্টা পরস্পরের ছায়া হয়ে ছিলাম।

কিন্তু হঠাৎ করেই এলোমেলো হয়ে যায় স্ত্রীর অসুস্থতায়। ২০১৮ সালে জ্যানেটের স্মৃতিবিভ্রাটজনিত রোগ আলঝেইমার ধরা পড়ে। আর আগে থেকেই ছিল অস্টিওপোরোসিস। সেসময় ২৪ ঘণ্টাই পাশে থেকে সেবা করেছেন নিক। তবে একসময় এত অসুস্থ হয়ে পড়েন যে, বাড়িতে রেখে চিকিৎসা সম্ভব হয়ে ওঠেনা। স্ত্রীকে হাসপাতালে পাঠিয়ে একাকীত্ব বিপর্যস্ত করে ফেলে নিককে। সিদ্ধান্ত নেন জীবনকে নতুনভাবে দেখার।

আশ্রয় হিসেবে পাহাড়কে বেছে নেন নিক। সিদ্ধান্ত নেন, মানরোজ হিসেবে পরিচিত স্কটল্যান্ডের ২৮২টি পর্বত জয়ের। যেগুলোর উচ্চতা ৩ হাজার ফুটের বেশি। ১ হাজার ২শ দিনের চ্যালেঞ্জের মধ্যে আছে তহবিল সংগ্রহও। পরিবারের উৎসাহে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সক্রিয় হয়ে ওঠেন নিক। ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামে অভিযানের নিয়মিত আপডেট দেন তিনি। ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে ফলোয়ার সংখ্যা। ৪০ হাজার পাউন্ড সংগ্রহের লক্ষ্য থাকলেও, এরইমধ্যে জোগাড় হয়েছে ৩০ হাজার পাউন্ড।

তহবিলে প্রাপ্ত অর্থ রয়্যাল অস্টেওপোরোসিস সোসাইটি আর আলঝেইমারস স্কটল্যান্ড নামের দুটি সংস্থাকে অনুদান হিসেবে দেবেন নিক। স্ত্রী জ্যানেটের চিকিৎসায় বিশেষ ভূমিকা রয়েছে সংস্থা দুটির। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here