অনলাইন ডেস্কঃ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ৬ অক্টোবরের নির্বাচনে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী খালেদ মাহমুদ ও নাজমুল আবেদীন ফাহিমকে নিয়ে আলোচনা তুঙ্গে।

খালেদ মাহমুদ বর্তমান কমিটির গেম ডেভেলপমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান। এই বিভাগে অনেকদিন কাজ করেছেন নাজমুল আবেদীনও। তিনি এখন বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) ক্রিকেট উপদেষ্টা। একই পদে এই দুজন পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়বেন। কাল দুজনই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ৩২ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন এদিন। আজ প্রার্থী বাছাই এবং চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন। প্রার্থিতা তুলে নেওয়ার শেষদিন ৩০ সেপ্টেম্বর।

গতবার অনেকেই সরাসরি পরিচালক হলেও নির্বাচন করে আসতে হয়েছিল অভিষেক টেস্টের অধিনায়ক নাঈমুর রহমানকে। এবারও তাকে লড়াই করতে হবে। ঢাকা বিভাগের দুজন পরিচালকের জন্য চারজন প্রার্থী। নাঈমুর রহমানের প্রতিপক্ষ তানভীর আহমেদ টিটু, সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু ও খালিদ হোসেন। এই বিভাগে চারজনই শক্তিশালী প্রার্থী। বর্তমান কমিটিতে নাঈমুর রহমান হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) বিভাগের চেয়ারম্যান। নিজের কাজ নিয়ে তিনি সন্তুষ্ট। কাল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর নাঈমুর বলেন, ‘একটা সময় বোর্ডে সংকীর্ণতা, সীমাবদ্ধতা ছিল। এখন নেই। শুধু টাকা জমিয়ে রাখা, এফডিআর করা এই বিষয়গুলো থেকে বেরিয়ে এসে আঞ্চলিক ক্রিকেটের উন্নয়নে, একাডেমি উন্নয়নে আরও বেশি ব্যয় করা উচিত।’ তিনি বলেন, ‘কাজ নিয়ে ব্যক্তিগতভাবে আমি খুশি। এইচপি দলকে নিয়ে কাজ করতে পেরেছি। এই জায়গাটাকে অবহেলার দৃষ্টিতে দেখার কোনো সুযোগ নেই। যিনি বোর্ড সভাপতি হবেন তিনিই অন্য বিভাগের বিষয়গুলো দেখবেন। এবার যদি বোর্ড পরিচালক হতে পারি, তাহলে দায়িত্ব সভাপতিই ঠিক করবেন।’ এদিকে বর্তমান কমিটির পরিচালকরা সমালোচনা করেছেন ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানের। এবারও চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে তার পরিচালক হওয়া নিশ্চিত। কাল আকরাম খান বলেন, ‘আমার ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য চট্টগ্রাম বিভাগের কাউন্সিলরদের ধন্যবাদ। চট্টগ্রামের জন্য কাজ করছি, দেশের জন্য কাজ করছি।’ ঢাকার ক্লাব প্রতিনিধিদের মধ্যে ১২টি পদের জন্য লড়বেন ১৭ জন। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here