অনলাইন ডেস্কঃ এবারের মৌসুমে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে প্যারিসের জায়ান্ট ক্লাব পিএসজি। আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে দলে টানার পর কিলিয়ান এমবাপ্পের ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জনও বিশ্ব ফুটবলে কাঁপন ধরিয়েছিল। যদিও রিয়াল মাদ্রিদ শেষ পর্যন্ত ফরাসি ফরোয়ার্ডকে দলে নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

এদিকে, চুক্তি সম্পর্কিত বিষয়ে ফরাসি জায়ান্টরা আবারো নতুন করে আলোচনায়। আর তা হচ্ছে, নেইমারের ‘নৈতিক বোনাস’।


গত মে মাসে পিএসজির সঙ্গে ২০২৫ সালের জুন পর্যন্ত নতুন চুক্তি করেছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। তবে এই চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে একটি অদ্ভুত ক্লজ, যা সম্ভবত বিস্ময়করও বটে।

সংবাদমাধ্যম এল মুন্দো সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার প্রত্যেক মাসে অতিরিক্ত ৫ লাখ ৪১ হাজার ৬৮০ ইউরো পান, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৫ কোটি ৪৬ লাখ ৬১ হাজার ৩৮১ টাকা।

আর এ অর্থ তিনি নেন বিনয়, সময়ানুবর্তীতা, বন্ধুত্বপূর্ণ ও ভক্তদের কাছাকাছি যাওয়ার জন্য। একই ক্লজে ক্লাবের খেলা, দল বাছাই ও ট্যাকটিক নিয়ে জনসম্মুখে তার কথা বলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ওই চুক্তি অনুযায়ী, নেইমারকে প্রত্যেক খেলার আগে-পরে বিনয়ের সঙ্গে ভক্তদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে হবে। এছাড়া টিমের ট্যাকটিক্যাল সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনো প্রকার বিরূপ মন্তব্য করা যাবে না। ক্লাবের সম্পর্কে কোনো নেতিবাচক মন্তব্যও এড়িয়ে চলতে হবে তাকে।


এদিকে, নেইমারের ভুঁড়ি নিয়েও আলোচনা প্রচুর হচ্ছে। দুর্দান্ত খেলেও কোপা আমেরিকার ফাইনালে নিজ দলকে শিরোপা জেতাতে পারেননি তিনি। তবে তার মাঠের পারফরম্যান্স ছিল অসাধারণ। এরপরই ছুটিতে যান নেইমার। আর তাতেই বেড়ে যায় নেইমারের ভুঁড়ি যা আলাদাভাবেই বোঝা যাচ্ছিল। তার ভুঁড়ি নিয়ে তাই ভক্তদের চলছে রসিকতা।

ভুঁড়ি যে বেড়েছে তা ঠিক হতে সময়ও লাগবে বেশ। অল্প অবহেলার ফল এমন তো হয় নি। পিএসজির হয়ে গত সপ্তাহে রেঁসের বিপক্ষে প্রথম খেলতে নেমেও নজরকাড়া কিছুই করতে পারেননি। ফলে তার ভুঁড়ি নিয়ে ফরাসি সংবাদমাধ্যমগুলো লিখেছে, প্রত্যাবর্তনটা ‘কঠিন’ ছিল নেইমারের। ব্রাজিলিয়ান তারকা ‘মুটিয়ে গেছেন’। দলের ‘রক্ষণে মোটেও সাহায্য করেননি’ তিনি।
তারপর আন্তর্জাতিক বিরতিতে দেশের হয়ে খেলতে ব্রাজিল দলে যোগ দেন নেইমার। চিলির মাঠেও একই পারফরম্যান্স। দল যা আশা করে তার অর্ধেকও দিতে পারেননি তিনি। বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়েও দুর্বল শটে নষ্ট করেন। ওই ম্যাচের পর আবারও রসিকতা শুরু হয় নেইমারের ভুঁড়ি নিয়ে।

এসবের পর আর চুপ থাকেননি নেইমার। নিজের ইনস্টাগ্রামের স্টোরিতে জবাব দিয়েছেন রসিকতার। নেইমার সেখানে লিখেছেন, ‘আমরা কি ভালো খেলেছি? না! আমরা কি জিতেছি? হ্যাঁ’। ম্যাচে পরা জার্সিটি ছোট ছিল এমন রসিকতা করে তিনি লিখেন, ‘জার্সিটা ছিল “জি” (ইউরোপিয়ান “এল” সাইজ) আকারের। আমি আমার সঠিক ওজনেই আছি। পরের ম্যাচে আমি আমার জন্য “এম” সাইজের জার্সি বানাতে বলব।’ সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here