অনলাইন ডেস্কঃ ভারতের বায়ুদূষণের সমস্যা নতুন নয়। তবে এবার প্রকাশ্যে এল ভারতের জন্য এক উদ্বেগজনক রিপোর্ট। এবার বায়ু দূষণে মারাত্মক হুমকির মুখে দেশটি।

গত কয়েক বছরে ভারতের বিভিন্ন শহর বিশেষত রাজধানী দিল্লির পরিস্থিতি বারবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে যে আরও সতর্ক হওয়ার সময় এসেছে, নাহলে বিপদ আসতে বেশি দেরি নেই।

এবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠান ভারতের দূষণ নিয়ে যে রিপোর্ট সামনে এনেছে, তা সত্যিই উদ্বেগজনক। বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভয়াবহ বায়ু দূষণের কবলে পড়ে গড়ে নয় বছর করে আয়ু হারাচ্ছেন প্রায় ৪০ শতাংশ ভারতীয়। এছাড়া, দেশটির ৪৮ কোটি মানুষ উচ্চ মাত্রার বায়ু দূষণের মধ্যে বসবাস করতে বাধ্য হচ্ছেন।
শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের এনার্জি পলিসি ইনস্টিটিউট পরিচালিত ওই গবেষণার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, কীভাবে ভারতের মধ্য, পূর্ব ও উত্তরাঞ্চলের ৪৮ কোটি মানুষ উচ্চ মাত্রার বায়ু দূষণের মধ্যে বসবাস করছেন। ধীরে ধীরে এই দূষণের মাত্রা বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। এর মধ্যে মহারাষ্ট্র ও মধ্যপ্রদেশের বায়ু দূষণের মাত্রা সবচেয়ে খারাপ।
গবেষণার প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, যদি দক্ষিণ এশীয় দেশগুলো বায়ু দুষণ সম্পর্কিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বেঁধে দেওয়া নির্দেশিকা পূরণ করতে পারে, তবে এই অঞ্চলের একেক ব্যক্তির গড় আয়ু ৫ দশমিক ৬ বছর করে বাঁচবে। তবে, আশঙ্কার বিষয় হলো, সম্প্রতি জানা গেছে, দিল্লিতে ২০২১ সালে এমন একটিও দিন যায়নি, যেদিন সেখানকার বাতাসের গুণমান বা একিউ মাত্রা ভালো ছিল।

২০২০ সাল পর্যন্ত টানা তিন বছর বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত রাজধানী ছিল দিল্লি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনার অনুযায়ী বাতাসে গড় পার্টিকুলেট ম্যাটার বা পিএম-এর ঘনত্ব থাকা উচিত প্রতি ঘনমিটারে ১০ মাইক্রোগ্রাম। কিন্তু ২০১৯ সালে ভারতের গড় পার্টিকুলেট ম্যাটার বা পিএম-এর ঘনত্ব ছিল প্রতি ঘনমিটারে ৭০ দশমিক ৩ মাইক্রোগ্রাম। অর্থাৎ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আদর্শ পিএম ঘনত্বের সাত গুণেরও বেশি। বলাই বাহুল্য এই দূষণের মাত্রাটা ছিল বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ।
এশিয়ানেট নিউজের প্রতিবেদনে জানা গেছে, তবে শুধু ভারতই নয়, দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের বাংলাদেশ, নেপাল এবং পাকিস্তানও গত কয়েক বছর ধরে ধারাবাহিকভাবে বিশ্বের সব চেয়ে দূষিত পাঁচ দেশের মধ্যে স্থান পেয়েছে। সেইসঙ্গে, এই এলাকাতেই বাস করে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার প্রায় এক- চতুর্থাংশ মানুষ। আর এই উচ্চ জনসংখ্যা এবং মাত্রাতিরিক্ত দূষণের কারণে দূষণের কারণে বিশ্বের মোট আয়ু খোওয়া যাওয়ার ৫৮ শতাংশই যাবে দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here