অনলাইন ডেস্কঃ মাহমুদুল্লাহ রিয়াদরা যখন প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন অনুশীলনে নামার, তখন উপুড় হয়ে উইকেট বোঝার চেষ্টা করছিলেন দেশসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। সঙ্গী টাইগার হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। বাঁ হাতি স্পিনার সাকিব টোকা দিয়ে বুঝার চেষ্টা করছিলেন, উইকেটের আচরণ কেমন হবে? এক-দুবার কোচের সঙ্গেও কথা বলেন সাকিব। এরপর ধীরলয়ে যোগ দেন অনুশীলনে। গতকাল মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) বিকালে দেখা গেল এই চিত্র।

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড টি-২০ সিরিজের পাঁচ ম্যাচের প্রথমটি আজ বুধবার মাঠে গড়াবে বিকাল ৪টায়। তার আগেই দুই দলের ক্রিকেটাররাও চিন্তিত উইকেটের আচরণ কেমন হবে সেটি ভেবে। অস্ট্রেলিয়া এক সময় ছিল অপরাজেয়। কিন্তু ঘরের মাঠে টাইগারা ধীরলয়ের উইকেটের সুচারু ব্যবহারে বিধ্বস্ত করে অস্ট্রেলিয়াকে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সদ্য সমাপ্ত সেই সিরিজে ‘সিরিজসেরা’ হন সাকিব আল হাসান।

অজিদের বিরুদ্ধে সেই সিরিজে সাকিব আল হাসান ছুঁয়েছেন এক অনন্য মাইলফলক। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১০০ উইকেট ও ১০০০ রান করার মাইলফলক অর্জন করেছেন। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে ব্যাট হাতে ১১৪ রানের পাশাপাশি বল হাতে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট। শেষ ম্যাচে একাই নিয়েছেন ৪ উইকেট। ১০০০ রানের গন্ডি তিনি অনেক আগেই পার করেছেন। কিন্তু এই ৭ উইকেট নেওয়ায় সাকিব আল হাসান আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ১০০ উইকেট প্রাপ্তির মাইলস্টোন স্পর্শ করেন।

সাকিব আল হাসান মাঠে নামা মানেই কোনো না কোনো রেকর্ডের হাতছানি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও এর ব্যতিক্রম হচ্ছে না। আসন্ন পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে এমন দুই মাইলফলক ছুঁতে পারেন বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার, যেখানে আর কেউ নেই।

কিউদের বিপক্ষে ৬ উইকেট নিলে টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হবেন সাকিব। ১০৭ উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন শ্রীলঙ্কার সাবেক পেসার লাসিথ মালিঙ্গা। শুধু তাই নয়, আর ৬ উইকেট নিতে পারলেই ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১২ হাজার রান ও ৬০০ উইকেটের মালিক হবেন সাকিব আল হাসান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে সাকিবের রান ১২ হাজার ২৫১, আর উইকেট ৫৯৪টি। তাই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের চাই ৬টি উইকেট। আর সেটি পেলেই অনন্য এক উচ্চতায় নিজেকে নিয়ে যাবেন তিনি।

এর আগে, তিনি দ্রুততম ক্রিকেটার হিসেবে ১২ হাজার রান ও ৫০০ উইকেটের মালিক হন। ওই রেকর্ডের পথে সাকিব পেছনে ফেলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিসকে। সাকিব যেখানে ৩৪৮ ম্যাচে এই মাইলফলক অর্জন করেন, ক্যালিসের লেগেছিল ৪২০ ম্যাচ।

সাকিব ৫৮ টেস্টে উইকেট পান ২১৫টি, ২১৫ ওয়ানডেতে ২৭৭টি ও ৮৪ টি-টোয়েন্টিত নেন ১০২টি। টেস্টে রান ৩৯৩৩, ওয়ানডেতে ৬৬০০ ও ৮৪ টি-টোয়েন্টিতে ১৭১৮। সূত্রঃ বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here