অনলাইন ডেস্কঃ টোকিওতে জরুরি পরিস্থিতির কারণে দর্শকশূন্য অবস্থায় অনুষ্ঠিত হবে এবারের প্যারলিম্পিক। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে আয়োজক কর্তৃপক্ষ। দর্শকবিহীন গেমস নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া অ্যাথলিটদের মাঝে।

আগামী ২৪ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে টোকিও প্যারালিম্পিক। যেখানে ২২টি স্পোর্টসে অংশ নেবেন সাড়ে চার হাজারেরও বেশি অ্যাথলিট। করোনায় নানা প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত অলিম্পিক সফলভাবে শেষ করে টোকিও কর্তৃপক্ষ। এখন তাদের সামনে প্যারালিম্পিক চ্যালেঞ্জ। সম্প্রতি জাপানের রাজধানীতে আবারও কোভিড-১৯ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বেশ বিপাকে আয়োজকরা। এমন পরিস্থিতিতে প্যারালিম্পিকে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে গেমস আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে অলিম্পিক কমিটি। এ ছাড়াও ভিলেজ থেকে শুরু করে ভেন্যুতে থাকছে কড়া বিধিনিষেধ। এসবের নেতিবাচক প্রভাব পারফরম্যান্সে পড়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন অ্যাথলিটরা।


এক অ্যাথলিট বলেন, ‘যখন আমি শুনলাম সাধারণ দর্শকরা এই গেমস দেখতে পারবে না আমি সত্যিই হতাশ হয়ে গিয়েছিলাম। ভক্তদের সামনে রেখে পারফর্ম করতে পারব না, এটা আমি ভাবতেই পারি না। কারণ ওদের জন্যই আমরা ভালো খেলি।’ আরেকজনের বক্তব্য, ‘গত এক বছর ধরে আমি দর্শকশূন্য মাঠে অনুশীলন করছি। বলতে পারেন এটাতে আমি অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। সুতরাং দর্শক না থাকলেও সেটা আমি মানিয়ে নিতে পারব। আমার সম্পূর্ণ ফোকাস থাকবে পারফরম্যান্সের দিকে।
প্রতিবন্ধকতা থাকলেও বিশেষায়িত অ্যাথলিটদের নিয়ে এই আয়োজনে উন্মাদনার ঘাটতি নেই। টোকিও প্যারালিম্পিকে অংশ নিচ্ছে ১৬৩টি দেশ। ২২টি স্পোর্টসের ৫৪০টি ইভেন্টে যেখানে অংশগ্রহণ করবেন ৪ হাজার ৫৩৭ জন খেলোয়াড়। এ ব্যাপারে এক অ্যাথলিটের ভাষ্য, ‘অবশ্যই আমি ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। কোচ আমাকে নিয়ে বেশ পরিশ্রম করেছেন। আমি তার প্রতিদান দিতে চাই। এর আগে লং জাম্পে আমার স্কোর ছিল ৮.৬২ মিটার। সেই রেকর্ড ভেঙে আরও ভালো কিছুর প্রত্যাশা করছি।’ ফেন্সিং ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে যাওয়া এক তারকা বলেন, ‘আমার খেলাটাই আমাকে সুরক্ষা দেয়। কারণ আপনি যখন ফেন্সিং করবেন, প্রতিপক্ষের আক্রমণগুলো থেকে বাঁচতে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আমি এটা নিয়ে বিব্রত নই। বরং ভালোই লাগে।’
উল্লেখ্য, এবারের প্যারালিম্পিক থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সেইলিং এবং সেভেন সাইড ফুটবল। এই দুটো ডিসিপ্লিনের জায়গায় যুক্ত হয়েছে তায়কোয়ান্দো এবং ব্যাডমিন্টন। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here