অনলাইন ডেস্কঃ দীর্ঘ ২০ বছর পর ফের আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করেছে তালেবান। ক্ষমতা দখলের পর নারীদের প্রতি আরও মানবিক হওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তালেবান নেতৃত্ব।

তারা জানিয়েছেন, নারীরাও স্কুলে এবং কর্মক্ষেত্রে অবাধেই যাতায়াত করতে পারবেন। তবে শরিয়ত আইন মেনে। কিন্তু তালেবান নেতৃত্বের এই প্রতিশ্রুতিতে আস্থা রাখা নিয়ে সতর্ক করলেন আফগানিস্তানের প্রথম নারী বিমান বাহিনীর পাইলট নিলুফার রহমানি।

বর্তমানে আফগানিস্তানে আটকা পড়েছেন রহমানির পরিবার। রবিবার তালেবান বাহিনী কাবুল দখলের পর থেকেই পরিবারকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় তিনি। ২০১৩ সাল থেকে রহমানিকেও একাধিক বার খুনের হুমকি দিয়েছে তালেবান। নিশানা করা হয়েছিল তার পরিবারকে। ২০১৫ সালে আফগানিস্তান ছেড়ে ভারতে চলে গিয়েছিলেন রহমানি। তারপর ২০১৮ সালে আশ্রয় নেন আমেরিকায়।

সংবাদমাধ্যমে নিজের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে রহমানি বলেন, কিছু দিনের মধ্যেই খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসবে তালেবান। স্বমূর্তি ধারণ করবে তারা। আবার পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হবে। তার কথায়, ‘‘আবার আমাকে আর আমার পরিবারকে হুমকি দেওয়া শুরু হয়েছে। ওদের বক্তব্য, আমি ভালো মুসলিম নারী নই। আমি নাকি আমার সংস্কৃতি ভুলে গিয়েছি। আমার মরাই উচিত।’’

রহমানি বলেন, ‘‘এই যুদ্ধ ঘোষণা আদতে নারীদের বিরুদ্ধে। পুরুষদের বিরুদ্ধে নয়।’’ সূত্র: বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here