অনলাইন ডেস্কঃ আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর তালেবান এখন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভের চেষ্টা করছে। সংগঠনটি দেশ পরিচালনা করতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে। ক্ষমতা দখলের পর সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে তালেবান। সেই সাথে নারীদেরকেও তাদের সরকারে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে তালেবান।

মঙ্গলবার এ ঘোষণার মধ্য দিয়ে কাবুলের জনগোষ্ঠীকে আশ্বস্ত করতে চেয়েছে গোষ্ঠীটি। তালেবানের সাংস্কৃতিক কমিশনের সদস্য ইনামুল্লাহ সামানগনি এ আহ্বান জানান।

সামানগনি বলেন, ইসলামিক আমিরাত (আফগানিস্তানকে এই নাম দিয়েছে তালেবান) নারীরা ক্ষতির শিকার হোক, তা চায় না। শরিয়াহ আইন অনুযায়ী সরকারে তাঁদের উপস্থিতি থাকা উচিত।

তিনি বলেন, এখনো সরকারের কাঠামো পুরোপুরি পরিষ্কার নয়, কিন্তু অভিজ্ঞতার আলোকে মনে হচ্ছে, এখানে পুরোপুরি ইসলামিক নেতৃত্ব থাকবে। এতে সব পক্ষেরই যোগ দেওয়া উচিত।

দুই দশক আগে তালেবান যখন ক্ষমতায় ছিল তখন নারীদের প্রতি তাদের যে মনোভাব ছিল সেখান থেকে সামানগনির সাম্প্রতিক বক্তব্য অনেকটাই আলাদা। ওই সময়ে বেশিরভাগ নারীই ঘরে বন্দি থাকতেন।

তালেবানের হাতে পতনের পর আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের পরিস্থিতি ক্ষণে ক্ষণে পাল্টাচ্ছে। প্রেসিডেন্ট প্রাসাদসহ গুরুত্বপূর্ণ এখানকার সব প্রশাসনিক দপ্তর ও স্থাপনায় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে তারা। সূত্র: বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here