অনলাইন ডেস্কঃ গত মে মাসের শুরুর দিকে আফগানিস্তান থেকে সেনা সরাতে শুরু করে ন্যাটো। প্রাথমিকভাবে সরিয়ে দেওয়া হয় ৯ হাজার ৬০০ সেনা, তার মধ্যে ২ হাজার ৫০০ জন আমেরিকার সেনা ছিলেন। তারপরেই হেলমন্দ প্রদেশে আফগানিস্তান সরকারের সঙ্গে লড়াই শুরু করে তালেবান। সেই দিন থেকে মাত্র ১০০ দিনেই আফগানিস্তানের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিলো তালেবান গোষ্ঠী।

আজ রবিবার বিনা প্রতিরোধে অন্তর্বর্তী সরকারের হাতে ক্ষমতা ছেড়ে পালিয়েছেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি। মাত্র ৪৫ মিনিটের বৈঠকে তালেবানের পক্ষেই যায় সব রায়। তার পরেই ক্ষমতার হস্তান্তর হল। এখন অভিষেক ঘটতে চলেছে আরেক গনির। তালিবান প্রধান মোল্লা আবদুল গনি বারাদার হতে পারেন আফগানিস্তানের নতুন প্রেসিডেন্ট।

এদিকে, আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুলেছেন নোবেলজয়ী সমাজকর্মী মালালা ইউসুফজাই। তিনি টুইটারে উদ্বেগ প্রকাশ করে বিশেষত আফগানিস্তানের শিশু, নারী ও মানবাধিকার কর্মীদের নিয়ে ভীষণ উদ্বিগ্ন বলে জানিয়েছেন।

মালাল আরও লিখেছেন, তালেবানের এভাবে আফগানিস্তান দখলের খেলা দেখে আমি অত্যন্ত দুঃখিত, ব্যথিত। আমি সেখানকার নারী, সংখ্যালঘু এবং মানবাধিকার কর্মীদের নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। বিশ্বের সমস্ত শক্তির কাছে আমার আবেদন, তারা সকলে যেন একযোগে আফগানিস্তানে শান্তি স্থাপনের চেষ্টা করেন এবং সে দেশের সাধারণ মানুষ ও উদ্বাস্তুদের যেন সবরকম সাহায্য পৌঁছে দেয়।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে খাইবার পাখতুনখোয়া অঞ্চলের বাসিন্দা কিশোরী মালালাকে স্কুলবাসে গুলি করে হত্যার চেষ্টায় অভিযুক্ত করা হয় তালেবানকে। তখন তাকে প্রাণ বাঁচাতে ব্রিটেনে নিয়ে গিয়ে চিকিত্‍সা করানো হয়। তারপর থেকে তিনি ও তার পরিবার ব্রিটেনের নাগরিক।

পরবর্তীতে নারী শিক্ষায় বরাবর আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া মালালা নিজের কাজের জন্য ২০১৪ সালে তিনি ভারতের কৈলাস সত্যার্থীর সঙ্গে যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার পান। মালালা এখন নারী অধিকার রক্ষায় কাজ করেন। সূত্র : বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here