অনলাইন ডেস্কঃ এক প্রকার ঢাক-ঢোল পিটিয়েই টটেনহ্যাম হটস্পার্স ছাড়বেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছিলেন হ্যারি কেইন। কিন্তু দলের নতুন কোচ এস্পিরিতো নুনো জানিয়েছেন, তার শিষ্য কোথাও যাচ্ছেন না, টটেনহ্যামেই থাকবেন। হ্যারি অনেকটা সমঝোতায়ও এসে গেছেন, প্রয়োজনে আরও বোঝাবেন বলে জানিয়েছেন পর্তুগিজ কোচ।

রোববার (৮ আগস্ট) এসব কথা জানান নুনো। নুনোর বক্তব্য, ‘আমরা হ্যারি কেইনের কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া আশা করছি। খুব দ্রুত তার সঙ্গে কথা বলব। সে এখন আমাদের খুব কাছেও। আমরা একসঙ্গে ট্রেনিং সেশনে অংশ নিয়েছি। তবে ও এখনও আইসোলেশনে থাকায় দূর থেকেই আমাদের কথা হয়েছে। আমি আশা করি সে আমাদের সঙ্গে থাকতে অপরাগতা প্রকাশ করবে না। আর সে আইসোলেশনে না থাকলে এখন আমাদের সঙ্গে ট্রেনিং করতো ও প্রীতি ম্যাচ খেলতো।’

স্বল্প স্বল্প বিরতি সত্ত্বেও বলাই যায়, হ্যারি কেইন ২০০৯ সাল থেকে টটেনহ্যাম হটস্পার্সের হয়ে খেলছেন। মাঝে কখনও ধারে খেলেছেন নরউইচ সিটি, লিস্টার সিটিতে। দশকব্যাপী এই ক্যারিয়ারে অসংখ্যা গোল করলেও ক্লাবের হয়ে তেমন কোনো অর্জন নেই ইংল্যান্ড অধিনায়কের। অনেকটা সেই আফসোস থেকেই স্পার্স ছাড়বেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। তাকে কেনার দৌড়ে ম্যানচেস্টার সিটি আগ্রহও দেখিয়েছে বেশ কয়েকবার। আকারে ইঙ্গিতে মনে হয়েছে হ্যারি কেইনও ম্যানচেস্টার সিটিতে আসতে চান। কেননা সার্জিও আগুয়েরো এখন ম্যানিসিটি ছেড়ে বার্সেলোনায়, পরীক্ষিত কোনো স্ট্রাইকার নেই পেপ গার্দিওলার দলে। রহিম স্টার্লিংয়ের প্রতিও খুব একটা আগ্রহ ঠেকছে না স্প্যানিশ কোচের! গুঞ্জনই বেরিয়েছিল, স্টার্লিংয়ের পরিবর্তে হ্যারি কেইনকে নাকি দলে চান তিনি। তাহলে যে অধরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগটাও জয়ের স্বপ্ন পুরোদমে দেখতে পারবেন তিনি- মন এভাবেই হয়তো কথা বলছে গার্দিওলার!

এদিকে টটেনহ্যাম হটস্পার্স আবার হ্যারি কেইনকে রেখেই আরেক স্ট্রাইকারের দিকে হাত বাড়িয়েছে। ইন্টার মিলানের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার লাওতারো মার্টিনেজকে দলে আনতে চাচ্ছে তারা। হ্যারি কেইনও থাকবেন দলে, খেলবেন মার্টিনেজের সঙ্গে।

উল্লেখ্য, ক্লাব ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত ৪০১ ম্যাচে খেলেছেন হ্যারি কেইন। ইংল্যান্ড দলপতির পা থেকে এসেছে ২৩৭ গোল। তবুও দলীয় কোনো অর্জন নেই তার। নেই মানে নেই, একদম নেই। ২০২০ সালে টটেনহ্যামের সঙ্গে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে খেলেছেন তিনি। দুইবার কারাবো কাপের ফাইনালে খেলেও ট্রফির মুখ না দেখেই বিদায় নিতে হয়েছে তাকে। হ্যারি কেইন শিরোপা জিততে পারেননি জাতীয় দল ইংল্যান্ডের হয়েও। সূত্রঃ সময় নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here