অনলাইন ডেস্কঃ মহামারী করোনার তীব্র আবহে প্রতিবাদ, বিক্ষোভ, অসহযোগিতার বাতাবরণে গত ২৩ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ৩২তম আসর টোকিও অলিম্পিক শেষ হল রঙিন আলো, উচ্ছ্বাস ও আবেগে ভর করে। আজ ৮ আগস্ট মোট ১৬ দিনে ৫০টি ডিসিপ্লিনে মোট ৩৩৯টি স্বর্ণের লড়াই অনুষ্ঠিত হয়। এবারের অলিম্পিকে শীর্ষে আছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিনিরা এ আসরে ১১৩টি মেডেল অর্জন করেছে। যার মধ্যে ৩৯টি স্বর্ণ। ৮৮টি পদকের মধ্যে ৩৮টি স্বর্ণ জয় করে চীন আছে দ্বিতীয় অবস্থানে। জাপান তৃতীয় এবং চতুর্থ অবস্থানে আছে যুক্তরাজ্য। এবারের আসরে সবচেয়ে সফল ক্রীড়াবিদ এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ৫টি স্বর্ণপদক জিতেছেন মার্কিন সাঁতারু কেলেব ড্রেসেল। আর সবচেয়ে বেশি ৭টি পদক জিতেছেন অস্ট্রেলিয়ার নারী সাঁতারু এমা ম্যাককিওন। ১৯৭৬ অলিম্পিকে রোমানিয়ার জিমন্যাস্ট নাদিয়া কোমানচির পর এবারের আসরে ‘পারফেক্ট’ টেন স্কোর করে ইতিহাস গড়েন চীনের কিশোরী ডাইভার কুয়ান হংচেন।

সিরিয়ার টেবিল টেনিস খেলোয়াড় হেন্দ জাজা ছিলেন এবারের অলিম্পিকের সর্বকনিষ্ঠ এ্যাথলেট (১২ বছর)। আর বয়োজ্যেষ্ঠ এ্যাথলেট ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ড্রেসেজ রাইডার ম্যারি হান্না (৬৬ বছর)।অলিম্পিকের ইতিহাসে ভাই-বোন জুটির স্বর্ণজয়ের ঘটনা এবারই দেখা গেছে। তারা হলেন জাপানের দুই ভাই (হিফুমি আবে)-বোন (উতাআবে)।

সিরিয়ার টেবিল টেনিস খেলোয়াড় হেন্দ জাজা ছিলেন এবারের অলিম্পিকের সর্বকনিষ্ঠ এ্যাথলেট (১২ বছর)। আর বয়োজ্যেষ্ঠ এ্যাথলেট ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ড্রেসেজ রাইডার ম্যারি হান্না (৬৬ বছর)।করোনার কারণে এক বছর পিছিয়ে যাওয়া প্রতিযোগিতা যে সফলভাবে আয়োজন করা সম্ভব, বিশ্বের দরবারে তা প্রমাণ করে দেখাল জাপান।

উল্লেখ্য, সর্বকালের সেরার মর্যাদা দেওয়া অলিম্পিকের এবারের আসরে আবেগ ও উচ্ছ্বাসে ভাসলেন সব দেশের অ্যাথলিটরা। অলিম্পিকের ইতিহাস ও পরম্পরার সঙ্গে জাপান সংস্কৃতির মেলবন্ধনে এক অপরূপ ভাবনার প্রতিফলন দেখল বিশ্ব। সূত্রঃ বিডি-প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here