অনলাইন ডেস্কঃ বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ছাড়ছে কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক প্রাচীন ধর্মীয় সংগঠন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ।

বুধবার বিকালে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় আমেলার বৈঠকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে।

সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে অংশ নিতে ইতোমধ্যে জমিয়তের পুরানা পল্টন কার্যালয়ে দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত হয়েছেন। জোহরের নামাজের পরই দলীয় বৈঠক থেকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জমিয়তের প্রচার সম্পাদক মাওলানা জয়নাল আবেদীন বুধবার দুপুরে বলেন, আজকে আমাদের বিশেষ আমেলার বৈঠক রয়েছে। কয়েকজন মুরব্বি এখনও এসে পৌঁছাননি। তারা আসলেই বৈঠক শুরু হবে।

জমিয়ত আজ ২০ দলীয় জোট ছাড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে কি না- এ বিষয়ে তিনি বলেন, এমনটিই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা বিকালের মধ্যে প্রেস রিলিজ পাঠিয়ে দেব।

সূত্রমতে, হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় জমিয়তের প্রথম সারির বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন জুনায়েদ আল হাবিব, শাহীনুর পাশা চৌধুরী, মনজুরুল ইসলাম আফেন্দি, মনির হোসেন কাসেমী, খালিদ সাইফুল্লাহ সাদী ও মোহাম্মদ উল্লাহ জামী।

জমিয়তের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রের দাবি, জুনায়েদ আল হাবিব ও মনির হোসেন কাসেমী ছাড়া বাকিদের মুক্তির বিষয়টি ত্বরান্বিত করতে জোট-ছাড়ার বিষয়টি কাজে দেবে, এমনটি মনে করা হচ্ছে। এ বিষয়ে এতদিন পক্ষে-বিপক্ষে দুটি মত থাকলেও এখন জোট ছাড়ার বিষয়ে সবাই একমত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম এখন দুই ভাগে বিভক্ত। উভয় অংশ বিএনপি-জোটের শরিক। ‘ভারপ্রাপ্ত’ হয়ে একটি অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মাওলানা জিয়া উদ্দীন (ভারপ্রাপ্ত সভাপতি)  ও মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া (ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব)।

এই অংশের সভাপতি মাওলানা আবদুল মোমিন গত বছর মারা গেলে মাওলানা জিয়াউদ্দিন ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পান। এরপর এ বছর করোনা আক্রান্ত হয়ে নূর হোসাইন কাসেমীর ইন্তেকালের পর ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হন মনজুরুল ইসলাম আফেন্দি, যিনি গত এপ্রিল থেকে হেফাজতের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। আফেন্দির অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া।

নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর নিবন্ধন নং ২৩। ২০০১ সালে সংগঠনটি বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়। ২০০১ সালের নির্বাচনে দলটির দু’জন সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here