৮৫ বছর বয়সী ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর চলে গেলেন না ফেরার দেশে। তিনি মস্তিষ্কের অস্ত্রোপচারের পর প্রায় দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছিলেন।

সোমবার (৩১ আগস্ট) ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাবেক এ রাষ্ট্রপতি মারা যান। তার ছেলে অভিজিৎ মুখার্জি তার নিজস্ব টুইটার এক টুইট বার্তার মাধ্যমে এ খবর নিশ্চিত করেন।

দিল্লির বাড়িতে গত ৯ আগস্ট বাথরুমে পড়ে গিয়ে গুরুতর আঘাত পান প্রণব মুখার্জি। এরপর তাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আঘাত পাওয়ার পর দিন থেকেই তার স্নায়ুতে বেশ কিছু সমস্যা দেখা দেয়। হাসপাতালে এমআরআই করায় দেখা গেছে তার মাথায় রক্ত জমাট বেঁধে আছে। চিকিৎসকরা এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে মস্তিষ্কের অস্ত্রোপচার করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু অস্ত্রোপচার করেও সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি তিনি। বরঞ্চ অবস্থার অবনতি হয়ে ১৩ আগস্ট থেকে তিনি গভীর কোমায় চলে যান।

এছাড়াও তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা পরীক্ষা করালে ফলাফল পজিটিভ আসে। করোনা সংক্রমিত হওয়ার খবরটা জীবনের শেষ টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছিলেন তিনিই। এমতাবস্থায় ঐ দিন রাতেই তার অস্ত্রোপচার করা হয়। প্রণব মুখার্জি অস্ত্রোপচার শেষে ভেন্টিলেশনে ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here