অনলাইন ডেস্কঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় মসজিদে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। জানাজার পর মরদেহ নিয়ে ফ্রিজিংভ্যান সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে।

আজ শনিবার (৩০ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে সাবেক এই অর্থমন্ত্রীর মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে নেওয়া হয়। সেখানে বাদ যোহর দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।রপর মরদেহ সড়ক পথে সিলেট নেওয়া হচ্ছে। রবিবার (১ মে) সেখানে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

এর আগে গুলশান আজাদ মসজিদে সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের প্রথম নামাজে জানাজা শেষে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তার মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হয়।

সেখানে সাবেক এই অর্থমন্ত্রীর মরদেহের প্রতি রাষ্ট্রপতির পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তার সামরিক সচিব মেজর জে. এস এম সালাউদ্দিন ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার সামরিক সচিব বিগ্রেডিয়ার জেনারেল কবির আহমেদ, স্পিকারের পক্ষে সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস কমরেড এম নাইম রহমান, আওয়ামী লীগের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, মতিয়া চৌধুরী, ঢাবি উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান, তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, জাসদের হাসানুল হক ইনু, বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির রাশেদ খান মেমন, মৎস্য ও পাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন মরহুমের ছোট ভাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম এ মোমিন প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, তার জ্ঞানের পরিধি বিস্তৃত। জ্ঞান চর্চা ও কাজের মাঝে ডুবে থাকতেন তিনি। সফল অর্থমন্ত্রী ও অর্থনীতিবিদ যেমন ছিলেন, তেমনি তিনি সততার মূর্ত প্রতীক।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে আবুল মাল আবদুল মুহিতের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। তার নেওয়া পদক্ষেপ, পরিকল্পনা দেশের উন্নয়ন গতিতে আগামীতেও পথ দেখাবে।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, তার মৃত্যুতে দেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। তার দীর্ঘ ও বর্ণাঢ্য কর্মজীবন থেকে নতুন প্রজন্মকে শিক্ষা নিতে হবে।

গতকাল শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) দিনগত রাত ১২টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত বছর করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) ভর্তি ছিলেন আব্দুল মুহিত। এরপর করোনার সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে তিনি বাসায় ফিরেন। করোনাক্রান্ত হওয়ার পর তাঁর শারীরিক অবস্থা ক্রমশই দুর্বল হয়ে পড়ে। সূত্রঃ কালেরকণ্ঠ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here