অনলাইন ডেস্কঃ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে নিশ্চিত করা হচ্ছে বাড়তি নজরদারি। প্রয়োজনীয় সুরক্ষাসামগ্রীসহ থাকছে অন্যান্য ব্যবস্থা। পাশাপাশি ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে স্কুলে স্কুলে ছেটানো হচ্ছে মশার ওষুধ।

আজ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শুরু হবে শারীরিক ক্লাস। শিক্ষার্থীদের কাছে শিক্ষক ও প্রিয় সহপাঠীদের সাথে দেখা হওয়াই যেন বাড়তি আনন্দ। অধিকাংশ অভিভাবকই স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছেন। স্কুলগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি রক্ষার জন্য নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। মাস্ক পরা ও হাত ধোয়া নিশ্চিতে নেয়া হয়েছে নানা ব্যবস্থা। কোনো কোনো স্কুলে শারীরিক দুরত্ব নিশ্চিতে করিডোরে বৃত্ত চিহ্নিত করা হয়েছে। আর জেড আকৃতি অনুসরণে হয়েছে আসন বিন্যাস। ঢাকার অগ্রণী স্কুল ও কলেজের শিক্ষক শামীম আরা বেগম জানালেন, স্কুলে থাকায় অবস্থায় কেউ অসুস্থ হলে তাদের জন্য হয়েছে আইসোলেশন সেন্টারের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে তাদের স্কুলটিতে।

২০২০ সালের মার্চে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর বন্ধ হয়ে গিয়েছিল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা থেকে শুরুতে ১৪ দিনের জন্য ছুটি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু বেশ কয়েক দফায় সেই ছুটি বাড়িয়ে প্রায় দেড় বছর পর খুলছে স্কুল ও কলেজ।

তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হচ্ছে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে। ভিড় এড়াতে প্রতিষ্ঠাগুলোতে অ্যাসেম্বলিও করতেও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। বিদ্যালয়ে ঢোকা ও বের হওয়ার আলাদা রাস্তা রাখতেও বলা হয়েছে।

বেশিরভাগ স্কুলই স্বাস্থ্যবিধি মেনে পাঠদান শুরু করার প্রস্তুতি নিয়েছে। ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করা হয়েছে শ্রেণিকক্ষগুলা। হাত ধোয়ার জন্য বসানো হয়েছে বেসিন।

স্কুল-কলেজ ক্লাস শুরু হলেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থাকছে বন্ধ। তবে সেগুলোও খুব শীঘ্রই খুলে দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here