অনলাইন ডেস্কঃ টিকা সংক্রান্ত কাজে তথ্য দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর আগ্রহ কম। ৪২ ঘণ্টায় মাত্র ৮৩ হাজার শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) দেওয়া লিংকে তাদের তথ্য আপলোড করছেন। এতে দেখা যাচ্ছে প্রতি মিনিটে মাত্র ৩২ জন তথ্য দিয়েছেন।

দেশে বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ৩৯ লাখ শিক্ষার্থী আছে। তাদের মধ্যে ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মাত্র সাড়ে পাঁচ লাখ করোনার টিকা দিয়েছেন। এর মধ্যে আবার সাড়ে চার লাখ শিক্ষার্থী এক ডোজ এবং ৯০ হাজার উভয় ডোজ টিকা নিয়েছেন। ইতোপূর্বে টিকার জন্য সাড়ে ১৭ লাখ শিক্ষার্থী সরকারি সুরক্ষাডটকমে নিবন্ধন করেছেন। সেই হিসাবে এখনো সাড়ে ২১ লাখ শিক্ষার্থী নিবন্ধন করেননি। সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এসব শিক্ষার্থীকে টিকার নিবন্ধন সারতে হবে। সেই হিসাবে দৈনিক সোয়া দুই লাখ শিক্ষার্থীকে নিবন্ধন করতে হবে।

ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, প্রথম দিকে কমসংখ্যক শিক্ষার্থী তাদের নাম নিবন্ধন করছিল। তবে যত সময় যাচ্ছে ততই তথ্য দেওয়ার হার বাড়ছে। এখনো সময় আছে। তা ছাড়া হয়তো অনেকেরই জন্মনিবন্ধন সনদ (বিআরসি) নেই। কেননা, তথ্য আপলোড করতে ন্যূনতম এ সনদটি দরকার। তবে আগ্রহী বাড়ছে। এখন এক সঙ্গে দুই থেকে আড়াই হাজার জনও তথ্য আপলোডের কাজ করছে। ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তথ্য লিংকে দেওয়া যাবে।

শুক্রবার রাত ১২টায় ইউজিসির তৈরি লিংক শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। রোববার বিকাল ৫টা পর্যন্ত মোট ৮৩ হাজার শিক্ষার্থী তাদের তথ্য দিয়েছেন। এর মধ্যে ৫৫ হাজার ৫৮৩ জনই টিকা দেননি। চার হাজার ১১ জন প্রথম আর পাঁচ হাজার ১৮৩ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন। নিবন্ধিতদের মধ্যে সাত হাজার ৫০০ জনের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) আছে। ৫৪ হাজার ৭৭৯ জনের বিআরসি আছে। অর্থাৎ তাদের এনআইডি নেই।

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, যেসব শিক্ষার্থী প্রথম বা উভয় ডোজ টিকা দিয়েছেন তাদেরও লিংকে তথ্য দিতে হবে। এ ছাড়া যারা টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন বা করেননি কিন্তু এনআইডি আছে, যাদের এনআইডি নেই কিন্তু জন্মনিবন্ধন সনদ আছে আর যাদের কোনোটিই নেই-তাদেরও, অর্থাৎ সবাইকেই ইউজিসির লিংকে তথ্য দিতে হবে। লিংকটি হচ্ছে https://univac.ugc.gov.bd। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here