চীনা ট্যাবলয়েড গ্লোবাল টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, খুব বেশি রাখা হবে না ভ্যাকসিনটির দাম

চীন প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে এনেছে করোনাভাইরাসের জন্য নিজেদের আবিষ্কার করা ভ্যাকসিন। রাজধানী বেইজিংয়ে বাণিজ্য মেলায় চলতি সপ্তাহে ভ্যাকসিনগুলো প্রদর্শনীর জন্য রাখা হয়েছে।

চীনা প্রতিষ্ঠান সিনোভ্যাক বায়োটেক এবং সিনোফার্ম ভ্যাকসিনটি বাজারে এনেছে। ভ্যাকসিনটির তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শেষে এই বছরের শেষের দিকে বাজারজাত করা হতে পারে।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে সিনোভ্যাক বায়োটেকের এক মুখপাত্র বলেন, ভ্যাকসিনটি উৎপাদনের জন্য তারা এর মধ্যেই একটি কারখানা নির্মাণ করেছেন। বছরে ৩০ কোটি ভ্যাকসিন উৎপাদন সম্ভব ওই কারখানা থেকে।

এদিকে সোমবার সম্ভাবনাময় এই ভ্যাকসিনটিনের নমুনাটি দেখতে বাণিজ্য মেলায় অনেকেই ভিড় জমায়। তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে প্রবেশ করতে যাওয়া এই ভ্যাকসিনটি বিশ্বের পরীক্ষাধীন ১০টি ভ্যাকসিনের মধ্যে রয়েছে।

গত বছরের শেষের দিকে প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মেলে চীনের উহানে। তবে বর্তমানে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে বেশ সফলতা পেয়েছে দেশটি। 

এর আগে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং গত মে মাসে বিশ্বের মানুষের ভালোর জন্য চীনের তৈরি ভ্যাকসিন বাজারে আনার প্রতিশ্রুতি দেন। 

এদিকে চীনা ট্যাবলয়েড গ্লোবাল টাইমসের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ভ্যাকসিনটির দাম খুব বেশি হবে না। সিনোফার্মের বরাত দিয়ে তারা বলেন, ১৪৬ মার্কিন ডলারের কম রাখা হবে ভ্যাকসিনটির প্রতি দুই ডোজের দাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here