অনেকেই অভিযোগ করেন, শুরুতে তার প্রতি যতটা মনোযোগী ছিলেন সময়ের সাথে সাথে তিনি ততটাই উদাসীন হয়ে গেছেন।

এর পেছনে অনেক কারণই থাকতে পারে।

সম্পর্ক-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে আগ্রহ হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাব্য কারণ সমূহ তুলে ধরা হল।আবেগের প্রকাশ: সম্পর্কের শুরুতে একে অন্যের প্রতি খুব একটা আন্তরিক থাকা হয় না। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে যখন সঙ্গীর প্রতি ভালোলাগা বাড়তে থাকে তখন নারীরা তা প্রকাশ করা শুরু করে এবং তা খুব স্বাভাবিক।

তবে এক্ষেত্রে অনেক পুরুষই বুঝে উঠতে পারেননা কীভাবে সাড়া দিতে হয়। তাই তারা অনেক সময় দূরে সরিয়ে রাখতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন।

অনিরাপত্তাবোধ: অনেক নারী আছেন যারা পুরুষ সঙ্গীকে অযথা সন্দেহ করে থাকে। সবসময় মোবাইল ফোন ‘চেক’ করে থাকেন। এতে সে আপনার অনিরাপত্তাবোধ সম্পর্কে অবগত হয়। তাকে বিভিন্ন বিষয়ে সবসময় প্রশ্ন করলে আস্তে আস্তে সে আপনার প্রতি আকর্ষণ হারাতে পারে।

সম্মান না করা: সঙ্গীকে অসম্মান করবেন না। সে যদি বুঝতে পারে যে তাকে অসম্মান করা হচ্ছে তাহলে তার অস্বস্তি বাড়বে এবং সে আপনার সঙ্গে দূরত্ব তৈরি করবে।

শারীরিক আকর্ষণ: শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে পুরুষ ও নারী সম্পূর্ণ বিপরীত। নারীরা পুরুষের প্রতি মানসিকভাবে বেশি আকর্ষিত ও সংযুক্ত হয় শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের পরে । অপরদিকে, পুরুষরা দ্রুত আকর্ষণ হারিয়ে ফেলে। সুতরাং সম্পর্কের শুরুতে শারীরিক সম্পর্কে যুক্ত হওয়া একটা মস্ত ভুল। এছাড়া, যে কোনো কারণে শারীরিক সম্পর্ক ত্যাগ করাও দুজনের মাঝে দূরুত্ব দূরত্ব তৈরি করতে পারে।

ভালোবাসায় জোর করা: শুরুতে সব সুন্দর থাকে, সময় বাড়ার সাথে সাথে অনুভূতি আরও গভীর হয় এবং গুরুত্ব বাড়তে থাকে। নারীরা সম্পর্কের প্রতি মানসিকভাবে দুর্বল হওয়ার সাথে সাথে সঙ্গীর উপরেও প্রভাব খাটাতে শুরু করে। একই অনুভূতি পুরুষদের ক্ষেত্রে না হলে সে তার সঙ্গীর প্রতি বিরক্ত হয় ও দূরত্ব সৃষ্টি করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here