অনলাইন ডেস্কঃ দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চলছে রাশিয়ার। এখনও যুদ্ধের তীব্রতা এবং পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে মস্কোর উত্তেজনা কোনোটিই কমেনি। এরমধ্যেই পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের হুমকি দিয়েছে রাশিয়া। এমনকি পরমাণু যুদ্ধের এই হুমকিকে অবমূল্যায়ন করা যাবে না বলেও মন্তব্য করেছে তারা। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে রয়টার্স।তিনি বলেছেন, ইউক্রেনে পশ্চিমা অস্ত্র সরবরাহের অর্থ হচ্ছে সামরিক জোট ন্যাটো ‘রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে গেছে’। সোমবার প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে ল্যাভরভ বলেন, ‘এই অস্ত্রগুলো বিশেষ অভিযানের প্রেক্ষাপটে রুশ সামরিক বাহিনীর জন্য বৈধ লক্ষ্যবস্তু হিসেবে বিবেচিত হবে।’রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ল্যাভরভ আরও বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটো রাশিয়ার সঙ্গে এক অর্থে যুদ্ধে লিপ্ত। তারা (রাশিয়ার বিরুদ্ধে) ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে এবং অস্ত্র সরবরাহ করে যাচ্ছে। যুদ্ধ মানে যুদ্ধই।’এদিকে ইউক্রেনে চলমান যুদ্ধের জেরে পারমাণবিক সংঘাত বৃদ্ধির আশঙ্কার কথা স্বীকার করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। অবশ্য আশঙ্কার পরই শান্তি চুক্তির সম্ভাবনা সম্পর্কেও আশার বাণী উচ্চারণ করেছেন তিনি। সূত্রঃ ইত্তেফাক

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here