অনলাইন ডেস্কঃ রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় দোকানমালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ ও হতাহতের ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে তারা জানিয়েছে, পুলিশের ওপর হামলা, সম্পদের ক্ষতি এবং হত্যার ঘটনায় মামলা করা হবে।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশের নিউমার্কেট জোনের সহকারী কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফারুকজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘এখনো মামলা হয়নি। তবে মামলা হবে। পুলিশের ওপর হামলা, সম্পদের ক্ষতি এবং হত্যা মামলা হবে।’

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার সংঘর্ষের সময় নিউমার্কেট এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সে হামলার ঘটনায় মামলা করা হবে। প্রথম দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে গত সোমবার রাতে। ওই ঘটনায়ও কোনো মামলা হয়নি। পরে গতকাল দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে আহত নাহিদ হোসেন (২০) নামের এক পথচারী রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ১২ সাংবাদিকসহ আহত হয়েছেন অনেকে। মারাত্মক আহত কয়েকজন চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সংঘর্ষের কারণে গতকাল প্রায় পুরো দিন রাজধানীর ব্যস্ত সড়ক মিরপুর রোডের সায়েন্স ল্যাব থেকে নীলক্ষেত পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ ছিল। এর প্রভাবে আশপাশের সড়ক কার্যত অচল হয়ে যায়। নীলক্ষেত ও নিউমার্কেট এলাকার বিপণিবিতানগুলোও খোলা সম্ভব হয়নি।

দফায় দফায় সংঘর্ষের পর গতকাল রাত সাড়ে ১০টার পর শিক্ষার্থী, দোকানমালিক ও কর্মচারীরা সড়ক থেকে সরে যান। পরে নীলক্ষেত-নিউমার্কেট এলাকার সড়কে যান চলাচল শুরু হয়। আজ সকালে পরিস্থিতি শান্ত থাকলেও দোকানপাট খুলতে দেখা যায়নি।জানা গেছে, সোমবার ইফতারের সময় টেবিল বসানো নিয়ে নিউমার্কেটের দুটি খাবারের দোকানের কর্মীদের মধ্যে বিরোধ হয়। এর জেরে ওয়েলকাম ফাস্ট ফুডের কর্মচারী বাপ্পীকে মারধর করেন ক্যাপিটাল ফাস্ট ফুডের কাওসার। প্রতিশোধ নিতে বাপ্পী ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে নিয়ে কাওসারের ওপর হামলা করেন। পরে কাওসারের লোকজন শিক্ষার্থীদের মারধর করে বের করে দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। সূত্রঃ প্রথম আলো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here