গোটা গোটা চোখ। কেপে উঠছে গোলাপি ঠোঁট দুটো কিছুক্ষণ পরপরই। সবমিলিয়ে এক অদ্ভুত মায়া পুরো চেহারায়। কোলে শুইয়ে দুই মাসের শিশুটিকে বাবার আদর দিয়ে ফিডারে দুধ খাওয়ানোর চেষ্টা করছেন হোটেল বাবুর্চি হারুন। কিন্তু তার ছোট চোখ দিয়ে ছোট্ট শিশুটি যেন অন্য কাউকে খুঁজছে।

রাজধানীর ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের (বারডেম হাসপাতাল) সামনের বাস কাউন্টারের টেবিলের ভেতর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এক শিশুকে। কে বা কারা শিশুটিকে ফেলে রেখে গেছে এখনো কিছু জানা যায়নি সে বিষয়ে। ২ মাস বয়সী শিশুটির দায়িত্ব তারাই নিতে চান যারা শিশুটিকে পেয়েছেন।

রাজধানীর বারডেম হাসপাতালের সামনের বাস কাউন্টারে হারুনসহ কয়েকজন একটি বাক্স থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করেন। রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাতে তারা বাচ্চাটিকে প্রথমে থানায় ও পরে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যান উদ্ধার করে। শিশুটিকে হারুন নিজেই নিজের কাছে রেখে দুই মেয়ের সাথে লালন করতে চায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, বাক্সটা কাঁপছিল। ঢাকনা তুলে দেখি ভেতরে বাচ্চা। এরপর প্রথমে দোকানে যাই বাচ্চাটিকে কোলে নিয়ে। তারপর থানা পুলিশ হয়ে হাসপাতালে। কিছুই জানি না কে বা কারা রেখে গেছে। তবে অনেক পাগল থাকে আশপাশে। নিজের শিশুকে এমন অমানবিকভাবে কে বা কারা রাস্তায় ফেলে রেখে গেছে তা জানা নেই কারোরই।

রমনা থানার সিনিয়র সহকারী কমিশনার এসএম শামীম বলেন, শিশুটিকে  হস্তান্তর করা হবে আগ্রহী কারো কাছে আইনের মাধ্যমে। শিশুটি সুস্থ আছে। আমরা তা যাচাই করব তার অভিভাবক কে।

শিশুটি সম্পূর্ণ সুস্থ থাকায় রমনা থানায় নারী পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here