অনলাইন ডেস্কঃ সমাপ্তি ঘটল লংকান প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল)। টানা দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হলো জাফনা কিংস।

হাম্বানতোতার মাহিন্দা রাজাপাকসে স্টেডিয়ামে ফাইনালে গল গ্ল্যাডিয়েটর্সকে ২৩ রানে পরাজিত করে জাফনা।

ফাইনালের ক্রিকেটপ্রেমীরা উপভোগ করেছেন রানবন্যা।

দানুস্কা গুনাথিলাকার মাত্র ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরির রেকর্ডের পরও শিরোপা ঘরে তুলতে পারল না গল গ্ল্যাডিয়েটর্স। ২১ বলে ৫৪ রান করে আউট হন তিনি।

কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগের ফাইনালে এটিই কোনো ব্যাটারের করা দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড।

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৩ উইকেটে ২০১ রানের বিশাল স্কোর গড়ে তোলে জাফনা কিংস। জবাবে গল গ্ল্যাডিয়েটর্স ৯ উইকেট হারিয়ে ১৭৮ রানে থামে।

প্রথম কোয়ালিফায়ারে জাফনাকে হারিয়েছিল গল গ্ল্যাডিয়েটর্স। কিন্তু ফাইনালে আর পারল না তারা।

এবারের আসরে একমাত্র গ্ল্যাডিয়েটর্সের কাছেই হার মানে কিংস। তাই ফাইনালে ফেভারিট হিসেবে গ্ল্যাডিয়েটর্সকে ধরা হয়েছিল। কিন্তু বাজিমাত করল থিসারা পেরেরার জাফনা।

এদিন আভিসকা ফার্নান্দোর হাফসেঞ্চুরির পর আফগান তারকা রহমানুল্লাহ গুরবাজ করেন ১৮ বলে ৩৫ রান। ৪১ বলে অপরাজিত ৫৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন টম কোহলার-ক্যাডমোর। পাক তারকা শোয়েব মালিকের ১১ বলে ২৩ রানের কার্যকরী ইনিংসের পর ২০১ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে জাফনা কিংস।

গলের হয়ে মোহাম্মদ আমির, নুয়ান তুষারা ও সামিত প্যাটেল ১টি করে উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে গ্ল্যাডিয়েটস ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে করে ১৭৮ রান।

গুনাথিলাকার হাফ-সেঞ্চুরি ছাড়াও কুশল মেন্ডিস করেন ৩৯। সামিত প্যাটেল ২২, ভানুকা রাজাপাকসে ১৪ এবং মোহাম্মদ হাফিজ ১০ রান করেন।

হাসারাঙ্গা ও চতুরঙ্গ ডি সিলভা ২টি করে উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন থিকসানা, জয়ডেন সিলস ও লাকমাল।

ফাইনালে ম্যাচসেরা হয়েছেন আভিসকা। ৩১২ রান করে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কারও বগলদাবা করেছেন তিনি। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here