অনলাইন ডেস্কঃ জমি লিখে না নিতে না পেরে পাবনার চাটমোহরে পিতাকে কিল-ঘুষি ও লাথি মেরে নির্যাতনের অভিযোগে এক স্কুল শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার পাশ্বর্ডাঙ্গা ইউনিয়নের মহেলা বাজারে ঘটনাটি ঘটেছে। এ ব্যাপারে পিতা হাজী মো. আতাউর রহমান (৭৫) চাটমোহর থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ রাতে স্কুলশিক্ষক ছেলে মো. মজনুর রহমানকে (৪৫) আটক করে। বুধবার দুপুরে আটক স্কুলশিক্ষককে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। সে চাটমোহর সরকারি আরসিএন এন্ড বিএসএন হাইস্কুলের শিক্ষক।

থানায় দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পিতার জমি লিখে না নিতে না পেরে মঙ্গলবার সকালে পিতার কর্মস্থল মহেলা বাজার ডাকঘরে ঢুকে পিতাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও কিল ঘুষি মারা শুরু করেন মজনুর। একপর্যায়ে অফিসের কাগজপত্র তছনছ করে ডাকঘরের মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নেন। পরবর্তীতে মোবাইল ফোন নিয়ে ওই শিক্ষক চলে যেতে চাইলে পিতা বাধা দেন। তখনই তার বাবাকে লাথি মারেন মজনুর। এছাড়াও প্রকাশ্যে পিতার সাথে ধাক্কাধাক্কি ও ধস্তাধস্তিও করেন।

চাটমোহর সরকারি আরসিএন এন্ড বিএসএন হাইস্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুস ছালাম বলেন, বিষয়টি খুবই লজ্জাকর ও দুঃখজনক। একজন শিক্ষকের কাছ থেকে এমন আচরণ কাম্য নয়। বিষয়টি আমি ইউএনও স্যারকে জানিয়েছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সৈকত ইসলাম জানান, বিষয়টি খুবই গর্হিত। থানায় মামলা হয়েছে। আইনগতভাবেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

চাটমোহর থানার ওসি মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেছেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে পিতাকে মারধর করেছে মজনুর রহমান। থানায় মামলা হয়েছে। আটক ছেলেকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আহত আতাউর রহমানকে চাটমোহর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here