অনলাইন ডেস্কঃ প্রশান্ত মহাসাগরের ছোট দ্বীপরাষ্ট্র সলোমন দ্বীপপুঞ্জের সঙ্গে চীনের সর্বশেষ চুক্তি দেশটিতে রাজনৈতিক মহলে ‘তুলকালাম’ চলছে। বিরোধীরা এই চুক্তি বাতিলের দাবি জানাচ্ছেন।

সলোমন দ্বীপপুঞ্জের প্রধান বিরোধী নেতা ম্যাথু ওয়েল বলেন, চীন-সলোমন চুক্তিতে কোনো স্বচ্ছতা নেই এবং জনগণ চীনের সঙ্গে চুক্তি চায় না।

ওয়েল জানান, চীনের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মানাসেহ সোগাভারের নিরাপত্তা চুক্তির তীব্র বিরোধিতা রয়েছে। তিনি আরও দাবি করেন, এই চুক্তির বিরোধীদের মধ্যে সোগাভারের সরকারের সদস্যরা আছে।

দ্য স্ট্র্যাটেজিস্টের সঙ্গে কথোপকথনে ওয়েল বলেন, সলোমন দ্বীপপুঞ্জের বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠরা চীনের সঙ্গে কোনো ধরণের নিরাপত্তা চুক্তি চায় না। তারা এই চুক্তিতে সই নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন।

তিনি আরও বলেছেন, ‘এটা আমার কাছে স্পষ্ট সাধারণ সলোমন দ্বীপপুঞ্জের বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠরা এখানে একটি ঘাঁটি, এমনকি এই চুক্তিও চায় না। সলোমানের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ প্রথমে চায় না চীন এখানে থাকুক।

সম্প্রতি দুই দেশের মধ্যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংক্রান্ত একটি খসড়া চুক্তি ফাঁস হয়েছে। ফাঁস হওয়া সেই নথিতে ইঙ্গিত ছিল, চীন যুদ্ধজাহাজ-সহ দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপের দেশটিতে তার সামরিক উপস্থিতি বাড়াতে পারে। আশঙ্কা রয়েছে চুক্তি সই হলে চীনের নৌবাহিনীর জাহাজ এই অঞ্চলে প্রবেশ করতে পারে। তবে ওই খসড়া চুক্তিতে এখনও মন্ত্রীরা সই করেননি।

সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিরাপত্তার বিস্তার নিয়ে প্রশাসন যথেষ্ট সচেতন। এ বিষয়ে নজরদারি বজায় রাখবে৷ তবে সোগাভারে চীনের সঙ্গে নিরাপত্তা চুক্তির বিষয়ে বিস্তারিতভাবে কিছু জানাননি। সূত্রঃ ইত্তেফাক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here