অনলাইন ডেস্কঃ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে একই বিভাগের এক নারী শিক্ষককে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম ছোটন দেবনাথ, তিনি ওই বিভাগে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত। নির্যাতিত নারী শিক্ষকও একই বিভাগের প্রভাষক। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছোটন দেবনাথকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিকসহ সব ধরনের কার্যক্রম থেকে সাময়িক অব্যাহতি দিয়েছেন।

নির্যাতনের শিকার নারী শিক্ষকের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ সেল তদন্ত শুরু করেছে। তদন্তের প্রথম দিনে গতকাল বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নারী শিক্ষকের শুনানি করেছে যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ সেল কমিটি।

অভিযোগে জানা যায়, চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি রাতে ছোটন দেবনাথের বাসায় ডেকে ওই নারী শিক্ষককে যৌন নির্যাতন করা হয়। ঘটনার পর ছোটন দেবনাথ কর্তৃক বিভিন্ন সময় ভুক্তভোগী নারী শিক্ষককে হুমকি দেয়া ও হয়রানীর অভিযোগও পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী নারী শিক্ষকের সাথে মুঠোফোনে কথা হয়। তিনি জানান, যৌন নির্যাতনের ঘটনাটি তিনি লিখিত আকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ সেলকে অবহিত করেছেন। বিষয়টি তাদের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন। এ সময় তিনি যথাযথ বিচার পাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তবে যৌন নির্যাতনের অভিযোগটিকে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক ছোটন দেবনাথ। তিনি বলেন, কেন ওই শিক্ষিকা আমাকে এমন হেনস্তা করছেন তা আমি জানি না। এ সময় ওই নারী শিক্ষকের সাথে তার পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ সেলের প্রধান তাসলিমা খাতুন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। বিষয়টি তদন্তাধীন থাকায় বিস্তারিত কিছু বলতে রাজি হননি তিনি। সূত্রঃ যমুনা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here