অনলাইন ডেস্কঃ টোকিও অলিম্পিকে বাংলাদেশের পতাকা বহনকারী অ্যাথলেট জহির রায়হান এখন জেল হাজতে।

তার বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলন, শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং ধর্ষণের মতো গুরুতর অভিযোগ রয়েছে।

এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ হলেন দেশের অন্যতম সেরা এই অ্যাথলেট।

তাকে জাতীয় অ্যাথলেটিকস দলের ক্যাম্প থেকে বহিষ্কার করেছে বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন।

বৃহস্পতিবার অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনে কার্যনির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রহিম মন্টুর নামে স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় অ্যাথলেট জহির রায়হান গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে আছে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোনো ক্রীড়া কার্যক্রমে জহির অংশ নিতে পারবেন না।

২০১৯ সালে এক নারী অ্যাথলেট জহিরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। সেই মামলায় বুধবার গাজীপুরের নারী ও শিশুবিষয়ক ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে জহির আত্মসমর্পণ করলে জামিন নামঞ্জুর করে তাকে হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এর বাইরেও জহিরের বিরুদ্ধে আরও এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ আছে। ওই নারী গত ২ সেপ্টেম্বর জহিরের কর্মস্থলে লিখিত অভিযোগ করেছেন। সূত্রঃ যুগান্তর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here