অনলাইন ডেস্কঃ এক সপ্তাহের জন্য আফগানিস্তানে নতুন সরকারের নাম ঘোষণা পিছিয়ে দিয়েছে তালেবান। সংগঠনটির মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো নতুন সরকার ঘোষণার দিনক্ষণ পিছিয়ে দিল তারা।

আফগানিস্তানের তালেবান সরকারের সম্ভাব্য প্রেসেডেন্ট হিসেবে মোল্লা আব্দুলগনি বারাদারের নাম প্রকাশ করা হয়েছে। তালেবানের তিনটি বিশ্বস্ত সূত্রের বরাত দিয়ে শুক্রবার রাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে। শুক্রবার জুমার নামাজের পর তালেবানের সম্ভাব্য সরকার গঠনের ঘোষণা দেয়া হবে বলে এর আগে জানানো হলেও তা সম্ভব হয়নি।

এদিকে পানশির উপত্যকায় ‘ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্ট’ (এনআরএফ) ও তালেবানের মধ্যকার লড়াই নিয়ে দুই ধরনের তথ্য পাওয়া গেছে। তালেবান দাবি করেছে যে পানশির তাদের দখলে চলে এসেছে। অন্যদিকে এনআরএফ বলছে, পানশির উপত্যকা এখনো পুরোপুরি তাদের নিয়ন্ত্রণেই আছে।

গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুল দখল করে নেয় তালেবান যোদ্ধারা। এর মধ্যে গত ৩১ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তান ছাড়ে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনী। মূলত এর পর থেকেই আফগানিস্তানের সম্ভাব্য নতুন সরকার নিয়ে নানা আলোচনা চলছে। গত বৃহস্পতিবার একাধিক তালেবান নেতা জানিয়েছিলেন, শুক্রবার আসর নামাজের পরেই নতুন সরকার ঘোষণা করা হবে। কিন্তু গত শুক্রবার দুপুরে তালেবানের এক মুখপাত্র জানান, শনিবার (৪ আগস্ট) সকালের আগে নতুন সরকার ঘোষণা করা সম্ভব নয়। এরপর গতকাল বিকেলে জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, ‘নতুন সরকার ও মন্ত্রিসভার নাম আগামী সপ্তাহে ঘোষণা করা হবে।’ তবে দিনক্ষণ পেছানোর কোনো কারণ তিনি উল্লেখ করেননি।

নতুন সরকার গঠন নিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে আলোচনা করতে তালেবান যে কমিটি করেছে, খলিল হাক্কানি সেই কমিটির সদস্য। সরকার গঠনের দিনক্ষণ পেছানোর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘তালেবান এমন একটি সরকার গঠন করতে চায়, যাতে করে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের স্বীকৃতি মেলে। তালেবান চাইলে একাই সরকার গঠন করতে পারে। কিন্তু সেই সরকার বিশ্বের স্বীকৃতি পাবে না। এ জন্য তালেবান চায় নতুন সরকারে সব গোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব থাকুক। মূলত এ কারণেই সরকারের নাম ঘোষণা পেছানো হয়েছে।’

এদিকে রয়টার্স বলেছে, তালেবানের কাতার দপ্তরের পলিটব্যুরো প্রধান মোল্লা আব্দুলগনি বারাদারই হচ্ছে আফগানিস্তানের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট। তিনি গত বছর আমেরিকার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি আলোচনায় তালেবানের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। সূত্রগুলোর নাম উল্লেখ না করে বার্তা সংস্থাটি বলেছে, তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা মোহাম্মাদ ওমরের ছেলে মোল্লা মোহাম্মাদ ইয়াকুব এবং শের মোহাম্মাদ আব্বাস স্তানাকজাই তালেবানের আসন্ন সরকারে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে যাচ্ছেন। এর আগে তালেবানের শীর্ষস্থানীয় নেতা বেলাল কারিমি বলেছিলেন, তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা হেবাতুল্লাহ আখুন্দজাদে পরবর্তী আফগান সরকারের প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন। তিনি মোল্লা আব্দুলগনি বারাদারকে সম্ভাব্য আখুন্দজাদে সরকারের মুখপাত্র হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন। সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here